Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বলিভিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্টের আত্মহত্যার চেষ্টা

২০১৯ সালে তার বিরুদ্ধে 'গণহত্যার' অভিযোগ আনা হয়েছিল। এ বছররের ১৩ মার্চ জিনিন আনেজকে গ্রেপ্তার করা হয়। তখন থেকেই তিনি বন্দি আছেন

আপডেট : ২৩ আগস্ট ২০২১, ০৯:২৪ পিএম

বলিভিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট জিনিন আনেজ কারাগারে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। ২০১৯ সালে তার বিরুদ্ধে “গণহত্যার” অভিযোগ আনা হয়েছিল। তবে বর্তমানে তার অবস্থা “স্থিতিশীল” রয়েছে। সোমবার (২৩ আগস্ট) একজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে কাতার ভিত্তিক সংবাদ সংস্থা আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, রবিবার কারাগারের পরিচালক জুয়ান কার্লোস লিম্পিস সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা নিঃসন্দেহে বলতে পারি, তার অবস্থা স্থিতিশীল আছে। এই মুহূর্তে তিনি তার পরিবারের সঙ্গে পেনিটেনটিয়ারিতে রয়েছেন। তার মানসিক অবস্থার উন্নতি করার জন্য পরিবার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।”

আনেজের মেয়ে ক্যারোলিনা রিবেরা বলেন, “দীর্ঘদিন কারাভোগের কারণে মা “তীব্র বিষণ্নতার” কারণে শনিবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন।”

আনেজের আইনজীবী নর্মা কুয়েলার শনিবার সাংবাদিকদের বলেন, “সাবেক প্রেসিডেন্ট সাহায্যের জন্য কাঁদেন এবং তিনি খুব হয়রান বোধ করছেন।”

এর আগে গত শুক্রবার বলিভিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল জুয়ান লানচিপা আনেজের বিরুদ্ধে “গণহত্যার” অভিযোগ আনেন। ২০১৯ সালে প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেসের বিরুদ্ধে সামরিক অভ্যুত্থানের সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ২২ জন নিহত হন। নিহতরা সবাই মোরালেসের সমর্থক ছিলেন। এসব নিহতের ঘটনার জন্য আনেজকে দায়ী করা হয়। যদিও নিজের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ নাকচ করে দেন সাবেক এই প্রেসিডেন্ট।

২০১৯ সালের নভেম্বরে সাবেক প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেস নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেন। এরপর তিনি ও তার মিত্ররা দেশ ছেড়ে পালান। মোরালেস দাবি করেছিলেন, অভ্যুত্থান করে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়। এরপর বলিভিয়ার অন্তবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় আসেন ডানপন্থী আনেজ।

২০২০ সালের অক্টোবরে নতুন একটি নির্বাচনের পর মোরালেস নির্বাসন থেকে দেশে ফেরেন। নির্বাচনে জিতে মোরালেস–সমর্থিত বামপন্থী দল মুভমেন্ট ফর সোশ্যালিজম (এমএএস)।

বলিভিয়ার সাবেক মধ্যপন্থী প্রেসিডেন্ট কার্লোস মেসা আনেজের এই “রাজনৈতিক কারাদণ্ডের” অবসান চান। একই সঙ্গে তাঁর প্রকৃত অবস্থা প্রকাশের আহ্বান জানান। আনেজের পরিবার বারবার তাঁকে হাসপাতালে পাঠাতে অনুরোধ করে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেস ক্ষমতাচ্যুত করে ক্ষমতায় আসেন ৫৪ বছর বয়সী আনেজ চাভেজ। তাকে এ বছররের ১৩ মার্চ জিনিন আনেজকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে সেই সময়কার সামরিক অভ্যুত্থানের ষড়যন্ত্র, রাষ্ট্রদ্রোহ ও সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনা হয়। পরে তাকে লা পাজের নারী কারাগারে পাঠানো হয়। যদিও তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এবং বলেছেন যে তিনি “রাজনৈতিক নিপীড়নের শিকার।” তখন থেকেই তিনি বন্দি আছেন।

About

Popular Links