Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জার্মানিতে পিজ্জা ডেলিভারি করছেন সাবেক আফগান মন্ত্রী

দুই স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং ২০ বছরের অভিজ্ঞতা সত্ত্বেও কাজের সুযোগ পাননি তিনি

আপডেট : ২৬ আগস্ট ২০২১, ০৭:৩৫ পিএম

কিছুদিন আগেই তালেবানরা আফগানিস্তানের শাসনক্ষমতা দখল করে নেওয়ার পর সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানিসহ মন্ত্রিপরিষদের কয়েকজন সদস্য এবং আফগান নাগরিকরা দেশ ছাড়ছেন। এরই মাঝে দেখা গেলো আফগানিস্তানের সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ আহমদ শাহ সাদাত এখন জার্মানিতে পিজ্জা ডেলিভারিম্যান হিসেবে কাজ করছেন।

সম্প্রতি সৈয়দ আহমদ শাহ সাদাত তার নিজ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও তাকে কমলা রঙের পোশাকে পিঠে ব্যাগ নিয়ে সাইকেল চালিয়ে জার্মানির লিপজিগ শহরে পিজ্জা সরবরাহের কাজ করতে দেখা যায়।

সাইকেলে করে পিজ্জা সরবরাহের সময় এক জার্মান সাংবাদিক রাস্তায় সাদাতকে দেখার দাবি করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে বলেন, ‘‘কিছুদিন আগে আমি এক ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাত করেছিলাম, যিনি নিজেকে আফগানিস্তানের সাবেক যোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রী বলে দাবি করেছিলেন। আমি জিজ্ঞাসা করলাম তিনি লিপজিগে কী করছেন? প্রত্যুত্তরে তিনি জানান, তিনি জার্মানিতে খাবার সরবরাহের কাজ করেন।’’

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কমিউনিকেশন অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে সায়েদ আহমেদ শাহ সাদাতের দুটি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি রয়েছে।

আরামকো এবং সৌদি টেলিকম কোম্পানির হয়ে তিনি ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে সৌদি আরবসহ বিশ্বের ১৩টি দেশে ২০টিরও বেশি সংস্থার সঙ্গে কাজ করেছেন।

এছাড়া, তিনি ২০১৬ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত লন্ডনে আরিয়ানা টেলিকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবেও কাজ করেছেন। ২০০৫ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানের যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কারিগরি উপদেষ্টা হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি।

বুধবার (২৫ আগস্ট) দুঃখভারাক্রান্ত মন নিয়ে ফেসবুকে সৈয়দ আহমদ শাহ সাদাত বলেন, ‘‘দুই স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং ২০ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা সত্ত্বেও আমি জার্মান ভাষা বুঝতে পারি না। আমার কর্মজীবনে, আমি জার্মানিতে কাজ করার সুযোগ পাইনি।’’

সায়েদ আহমেদ শাহ সাদাত ২০১৮ সালে আশরাফ ঘানির সরকারে ক্যাবিনেট মন্ত্রী হিসেবে যোগদান করেন। ২০২০ সালে পদত্যাগের আগ পর্যন্ত দুই বছর তিনি দেশটির তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেন। গত বছরের ডিসেম্বর মাসেই জার্মানিতে পাড়ি জমান। এরপর থেকেই তিনি লিপজিগ শহরে বসবাস করছেন।

স্কাই নিউজের সূত্রানুসারে, অর্থ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে তিনি  জার্মানির জনপ্রিয় খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান লিভ্রান্ডোর জন্য পেশাদার খাবার সরবরাহকারীর কাজ শুরু করেন।

তার গল্পটি এশিয়া এবং আরব বিশ্বে উচ্চপদস্থ ব্যক্তিদের জীবনযাত্রার ধরন পরিবর্তন করতে অনুঘটক হিসেবে কাজ করবে বলেও মনে করেন তিনি।

সৈয়দ আহমদ শাহ সাদাত কথা বলেন আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়েও। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, তিনি কখনোই আশা করেননি যে এত দ্রুত বেসামরিক সরকারের পতন হবে।

About

Popular Links