Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

৭ ঘণ্টায় ১০১ নারীর অপারেশন করলেন সার্জন!

ভারত সরকার দেশব্যাপী বিনামূল্যে বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচি করে থাকে। সরকারি নির্দেশনা অনুসারে, একজন সার্জন দিনে সর্বোচ্চ ৩০টি অস্ত্রোপচার করতে পারবেন

আপডেট : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০২ পিএম

ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মাত্র সাত ঘণ্টার মধ্যে ১০১ জন নারীকে অস্ত্রোপচারের অভিযোগ উঠেছে।

পিটিআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনাটি ঘটেছে সরগুজা জেলায় সরকারি পরিচালিত একটি সরকারি বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচিতে। ২৭ আগস্ট রাজধানী রায়পুর থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মাইনপাট ডেভেলপমেন্ট ব্লকের নর্মদাপুর কমিউনিটি হেলথ সেন্টারের বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচিটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

এদিকে এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর রাজ্য কর্তৃপক্ষ এ অনিয়ম তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

জানা গেছে, স্থানীয় সংবাদপত্রগুলো প্রথমে ওই কর্মসূচিতে অনিয়মের অভিযোগ আনে। পরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে ওই সার্জন এবং স্থানীয় স্বাস্থ্য আধিকারিককে একটি কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করে।

রাজ্যের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তরের প্রধান সচিব আলোক শুক্লা বলেন, এ বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে সেই ভিত্তিতে ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, কর্মসূচি ক্যাম্প চলাকালে একজন সরকারি সার্জন ১০১ জন নারীর “টিউবেকটমি” অস্ত্রোপচার করিয়েছেন। যাদের প্রত্যেকের অবস্থা স্বাভাবিক আছে বলে জানা গেছে।

“তবে, সরকারি নির্দেশনা অনুসারে, একজন সার্জন দিনে সর্বোচ্চ ৩০টি অস্ত্রোপচার করতে পারবেন। এই নির্দেশিকা কেন লঙ্ঘন করা হয়েছে তা জানতে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে,” বলেন আলোক শুক্লা।

এদিকে অভিযুক্ত সার্জন দাবি করেছেন, ওই নারীরা তার কাছে এসে অস্ত্রোপচারের অনুরোধ করেছিলেন। তারা অনেক প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে এসেছেন তাই বার বার আসাও সম্ভব নয় বলে জানিয়েছিলেন।

এ ঘটনার পর, ২৯ আগস্ট সারগুজা চিফ মেডিকেল অ্যান্ড হেলথ অফিসার (সিএমএইচও) পিএস সিসোড়িয়া ক্যাম্পে অপারেশন করা সার্জিক্যাল বিশেষজ্ঞ ডা. জীবনাস ইক্কা এবং ব্লক মেডিকেল অফিসার (বিএমও) ডা. আরএস সিংকে এ বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করেছিলেন। 

সিসোড়িয়া বলেন, “২২ আগস্ট দুপুর ১২ টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত অস্ত্রোপচারগুলো করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি রিপোর্ট জমা দিলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এর আগে ২০১৪ সালের নভেম্বরে বিলাসপুর জেলার একটি সরকারি বন্ধ্যাত্বকরণ ক্যাম্পে ৮৩ জন নারী টিউবেকটমি অস্ত্রোপচার করার অসুস্থ হয়ে পরেছিলেন। যাদের মধ্যে ১৩ জন মারা যান।

উল্লেখ্য, ভারত সরকার দেশব্যাপী বিনামূল্যে বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচি করে থাকে। এসব ক্যাম্পে সরকারি চিকিৎসকরা টিউবেকটমি অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে স্থায়ীভাবে নারীদের জন্মনিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা বন্ধ করে দেন। এ অস্ত্রোপচারের জন্য পেটে ছোট একটি ছিদ্র করে নারীদের ডিম্ববাহী নালীর কিছু অংশ বেঁধে কেটে ফেলে দিয়ে বা নালীপথ ক্লিপ অথবা রিং দিয়ে আটকে দেওয়া হয়। তাই সতর্কতার সঙ্গে অস্ত্রোপচার করা না হলে অনেকের মৃত্যুও ঘটতে পারে।

About

Popular Links