Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভারতীয় হিন্দু-মুসলিমদের পূর্বপুরুষ এক, দাবি আরএসএস প্রধানের

হিন্দু-মুসলমান সমাজের মধ্যে ঐক্য সাধন ও কট্টরপন্থী মুসলিম বিচারধারার বিরুদ্ধে সাধারণ শিক্ষিত মুসলমান সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান আরএসএস প্রধান

আপডেট : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৫ পিএম

ভারতের কট্টর হিন্দুত্ববাদী দল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবকে সংঘ (আরএসএস) এর প্রধান মোহন ভাগবত দেশটিতে বসবাসকারী প্রত্যেক হিন্দু-মুসলমানের পূর্বপুরুষ একই দাবি করে বলেছেন, “প্রত্যেক ভারতীয় নাগরিকই হিন্দু। ইসলাম ধর্ম এসেছিল আক্রমণকারীদের সঙ্গে। এটাই ইতিহাস। বিষয়টিকে এভাবেই ব্যাখ্যা করা ভালো।”

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) ভারতের মুম্বাইয়ে বিশিষ্ট মুসলিমদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতায় হিন্দু-মুসলমান সমাজের মধ্যে ঐক্য সাধন ও কট্টরপন্থী মুসলিম বিচারধারার বিরুদ্ধে সাধারণ শিক্ষিত মুসলমান সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান আরএসএস প্রধান। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মোহন ভাগবত বলেন, “হিন্দু শব্দ মাতৃভূমি, আমাদের পূর্বপুরুষ ও ভারতের গৌরবময় সংস্কৃতির অঙ্গ। সেই দিক থেকে আমি সব ভারতবাসীকেই হিন্দু হিসেবে মনে করি। হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ভুল ধারণা তৈরি করেছিল ব্রিটিশরা। তার ফলে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে অবিশ্বাসের বার্তাবরণ তৈরি হয়েছিল। শুরু হয়েছিল দ্বন্দ্ব। হিন্দুদের মনে গেঁথে দেওয়া হয়েছিল যে মুসলিমরা উগ্রপন্থী।”

মুম্বাইয়ে “রাষ্ট্র প্রথম-রাষ্ট্র সর্বোপরি” শীর্ষক ওই আলোচনায় প্রধান বক্তা ভাগবত দাবি করেন, ব্রিটিশরা মুসলিমদের বলেছিল যে হিন্দুদের সঙ্গে থাকলে কিছু পাওয়া যাবে না। শুধু মুসলিম নয়, হিন্দুদের মনেও ব্রিটিশরা ইসলাম-বিরোধী মনোভাব তৈরি করেছিল বলে দাবি করেন সংঘ প্রধান।

মুসলিম সম্প্রদায়ের বিশিষ্টদের উদ্দেশ্য করে ভাগবত বলেন, “একে অপরের মত নিয়ে কোনো অসম্মানের জায়গা থাকবে না। তবে মুসলিম আধিপত্যের বিষয়ে নয়, আমাদের ভারতের আধিপত্যের বিষয়ে চিন্তাভাবনা করতে হবে।  দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সকলকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।”

সভায় আফগানিস্তানের পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে ভারতে পাকিস্তান অশান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন কাশ্মীরের কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য সৈয়দ আতা হুসেন। তার আশঙ্কা, এ দেশে কট্টর ভাবধারা ছাড়ানোর চেষ্টা করবে পাকিস্তান।

এতে উপস্থিত ছিলেন কেরালার রাজ্যপাল আরিফ মুহাম্মাদ খান, কাশ্মীর কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য তথা সাবেক লেফটেন্যান্ট জেনারেল সৈয়দ আতা হুসেনের মতো বিশিষ্টজনরা।

উল্লেখ্য, এর আগে মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মোহন ভাগবত দাবি করেছিলেন, ভারতের হিন্দু ও মুসলমানদের ডিএনএ একই। সে সময়ে ওই মন্তব্য ঘিরে বির্তক হয়েছিল। ফের হিন্দু ও মুসলিমদের উৎস এক বলে মন্তব্য করে বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন তিনি।

About

Popular Links