Friday, June 14, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সামুদ্রিক প্রাণীদের ৮৮%-এর শরীরে প্লাস্টিক

সাগরের ওপর থেকে নীচ পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে প্লাস্টিক। প্রথমে সামুদ্রিক প্রাণীদের দেহে এবং সেখান থেকে মানুষসহ অন্য প্রাণীদের দেহেও ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০৭:৫৩ পিএম

ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার (ডাব্লিউডাব্লিউএফ)-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, সাগরের ওপর থেকে নীচ পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে প্লাস্টিক। প্রথমে সামুদ্রিক প্রাণীদের দেহে এবং সেখান থেকে মানুষসহ অন্য প্রাণীদের দেহেও ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক।

মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার (ডাব্লিউডাব্লিউএফ)-এর প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তাই যত দ্রুত সম্ভব প্লাস্টিক বর্জন বিষয়ক আন্তর্জাতিক চুক্তি সম্পাদনেরও আহ্বান জানিয়েছে ডাব্লিউডাব্লিউএফ।

জার্মানির আলফ্রেড ভেগেনার ইন্সটিটিউটের সঙ্গে যৌথভাবে তৈরি করা প্রতিবেদনে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার (ডাব্লিউডাব্লিউএফ) আরও জানিয়েছে, অন্তত ৮৮% বা দুই হাজার ১৪৪ প্রজাতির সামুদ্রিক প্রাণীর দেহই এখন প্লাস্টিকে প্রভাবিত। ফলে মানুষসহ অন্য যেসব প্রাণী ওইসব সামুদ্রিক প্রাণী খায়, তাদের দেহেও ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, শতকরা ৫২% সামুদ্রিক কচ্ছপ এবং ৯০% সমুদ্র-নির্ভর পাখির দেহেই কোনো-না-কোনো ভাবে এখন প্লাস্টিক যাচ্ছে। পরিস্থিতি এত ভয়াবহ যে, দুই হাজার ৫৯০টি বিজ্ঞান বিষয়ক সমীক্ষার তথ্য নিয়ে তৈরি প্রতিবেদনে আটলান্টিক এবং প্রশান্ত মহাসাগরে ভাসমান প্লাস্টিকে তৈরি অতিকায় “প্লাস্টিকের দ্বীপ”-এর সন্ধান পাওয়ার খবরও জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

ডাব্লিউডাব্লিউএফ মনে করে, প্লাস্টিকের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে না নিলে ২০৪০ সালের মধ্যে সাগরে প্লাস্টিকের বর্জ্যের পরিমাণ দ্বিগুণ হয়ে যেতে পারে। হলুদ সাগর পূর্ব চীন সাগর এবং ভূমধ্যসাগরের অবস্থা ইতিমধ্যে ভয়াবহ পর্যায়ে পৌঁছেছে।

ডাব্লিউডাব্লিউএফ-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই তিনটি সাগর ইতোমধ্যে প্লাস্টিক ধারণের চূড়ান্ত সীমায় পৌঁছেছে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে অনুষ্ঠেয় জলবায়ু বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত হবে। সমুদ্রকে বাঁচাতে তাই সেখানে প্লাস্টিকের ব্যবহার রোধ নিয়ে আলোচনা শেষে এ বিষয়ে একটি আন্তর্জাতিক চুক্তি স্বাক্ষরের আহ্বানও জানিয়েছে ডাব্লিউডাব্লিউএফ।

About

Popular Links