Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

৩৫ সপ্তাহের সন্তানসম্ভবাকে গর্ভপাতের অনুমতি দিলেন কলকাতা হাইকোর্ট

এই রায়কে ‘নজিরবিহীন’ বলেছেন চিকিৎসকরা

আপডেট : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০৬:২২ পিএম

৩৫ সপ্তাহের এক সন্তানসম্ভবা নারীকে গর্ভপাতের অনুমতি দিয়েছেন ভারতের কলকাতা হাই কোর্ট। তবে দেশটির প্রচলিত আইন অনুযায়ী, ২৪ সপ্তাহের পর গর্ভপাত করা বেআইনি। কিন্তু এক্ষেত্রে ভবিষ্যতে মা এবং নবজাতকের বড় সমস্যা দেখা দিতে পারে। চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শের পর এমন আশঙ্কা থেকেই প্রসূতির অনুমতি নিয়ে এমন রায় দেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গর্ভপাতের আবেদন করে গত সপ্তাহে হাইকোর্টে মামলা করেন উত্তর কলকাতার এক দম্পতি। বিয়ের পর শারীরিক সমস্যার কারণে তারা নিঃসন্তান ছিলেন। দীর্ঘ চিকিৎসার পর গর্ভবতী হন ওই নারী। কিন্তু গর্ভধারণের পর থেকেই আবার সমস্যা শুরু হয়। অনেক চিকিৎসকেরও পরামর্শ নেন তারা।

চিকিৎসকরা জানান, এই অবস্থায় ওই নারী সন্তান প্রসব করলে শারীরিক সমস্যা আরও বাড়তে পারে। শুধু তাই নয়, গর্ভস্থ ভ্রুণের স্পাইনাল কর্ডে জটিল জন্মঘটিত সমস্যা থাকায় জন্মের পরেও নবজাতকও কোনোদিন সুস্থ হতে পারবে না। এরপরেই গর্ভপাতের সিদ্ধান্ত নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন ওই দম্পতি।

তাদের আবেদনের ভিত্তিতে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নয়জন চিকিৎসকের একটি কমিটি গঠন করেন বিচারপতি রাজাশেখর মান্থা। তাদের পরামর্শও নেন তিনি। চিকিৎসকদের কমিটিও বিচারপতিকে জানান, সন্তান প্রসব করলে ওই নারী এবং নবজাতক উভয়েরই ক্ষতি হবে।

এরপরেই সরাসরি মহিলার মতামত জেনে গর্ভপাতের আর্জি মঞ্জুর করেন বিচারপতি মান্থা। তিনি আরও জানান, গর্ভপাত করার সময় কোনো সমস্যা হলে ওই দম্পতি কাউকে দায়ী করতে পারবেন না। আদালত বা চিকিৎসকেরা তার দায় নেবে না।

এর আগেও ২৪ সপ্তাহের পর গর্ভপাতের অনুমতি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু এই প্রথম ৩৫ সপ্তাহের কোনো সন্তানসম্ভবা নারীকে গর্ভপাতের অনুমতি দেওয়া হলো। এ কারণে এই রায়কে ‘‘নজিরবিহীন’’ বলেছেন চিকিৎসকরা।

About

Popular Links