Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রুবল দিয়ে কিনতে হবে রাশিয়ার গ্যাস

রাশিয়া জানিয়েছে, বহু দেশ যেভাবে রাশিয়ার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে, তারপর তাদের উপর আর বিশ্বাস রাখা যাচ্ছে না

আপডেট : ২৪ মার্চ ২০২২, ০১:১৬ পিএম

বন্ধুত্বপূর্ণ নয় এমন দেশের একটা তালিকা মার্চের গোড়ায় প্রকাশ করেছে রাশিয়া। সেখানে জার্মানিসহ ইইউ-র অধিকাংশ দেশ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, সুইজারল্যান্ড ও নরওয়ের নাম আছে। ফলে তারা এবার রাশিয়ার কাছ থেকে গ্যাস কিনলে রুবল দিয়ে কিনবে।

রাশিয়া জানিয়েছে, বহু দেশ যেভাবে রাশিয়ার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে, তারপর তাদের উপর আর বিশ্বাস রাখা যাচ্ছে না। বলা হয়েছে, অন্য দেশের সঙ্গে রাশিয়ার তেল ও গ্যাস সরবরাহ করার যে চুক্তি আছে, তা বহাল থাকবে। কেবল তেল ও গ্যাস নিলে রুবল দিতে হবে, ডলার বা ইউরো নয়।

২৭ জানুয়ারির হিসাব হলো, ইউরোপের দেশগুলি রাশিয়া থেকে যে তেল ও গ্যাস কিনেছে, তার দামের ৫৮% ইউরো দিয়ে শোধ করেছে। গত বছর তৃতীয় কোয়ার্টারে ৩৯% অর্থ দেওয়া হয়েছে ডলারে।

পুতিনের এই ঘোষণার পর রাশিয়ার মহাকাশ সংস্থা রসকসমস জানিয়েছে, তারা ভবিষ্যতে সব লেনদেন রুবলে করবে। 

এদিকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র, ইইউসহ বেশ কিছু দেশ কঠোর আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এর ফলে রুবলের দাম খুবই কমে গেছিল। তবে পুতিনের এই সিদ্ধান্তের পর রুবলের দাম বেড়েছে।

পুতিন জানিয়েছেন, সরকার ও সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক এক সপ্তাহের মধ্যে গ্যাস বিক্রির প্রক্রিয়া রুবলে করার জন্য প্রয়োজনীয় কাজকর্ম সেরে ফেলবে। এরপরই গ্যাস সংস্থা গ্যাজপ্রমকে সেই মতো চুক্তিতে বদল করার কথা বলা হবে।

২০২১ সালে রাশিয়া পাঁচ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের গ্যাস রপ্তানি করেছিল।

এদিকে জার্মানি এখনো রাশিয়ার গ্যাসের উপর অনেকটাই নির্ভরশীল। জার্মানির বক্তব্য, পুতিনের সিদ্ধান্ত চুক্তিভঙ্গ ছাড়া আর কিছু নয়। বিষয়টি নিয়ে জার্মানি শরিক দেশগুলির সঙ্গে কথা বলবে। মস্কো ইউক্রেন আক্রমণ করার আগে পর্যন্ত জার্মানির মোট চাহিদার ৫৫% গ্যাস আসত রাশিয়া থেকে।

অস্ট্রিয়ার সংস্থা ওএমভি জানিয়েছে, তাদের রুবল দিয়ে গ্যাস কেনার কোনো পরিকল্পনা নেই। বর্তমান চুক্তিতে ইউরোতে পেমেন্ট করার কথা বলা হয়েছে। অস্ট্রিয়ার ৮০% গ্যাস রাশিয়া থেকে আসে।

About

Popular Links