Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ইমরানের আজাদি মার্চ, ইসলামাবাদে সেনা মোতায়েন

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের আজাদি মার্চের পরিপ্রেক্ষিতে ইসলামাবাদে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে

আপডেট : ২৬ মে ২০২২, ০৪:৪১ পিএম

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের আজাদি মার্চের পরিপ্রেক্ষিতে ইসলামাবাদে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ খান জানিয়েছেন, সংবিধানের ২৪৫ অনুচ্ছেদ অনুসারে সেনা নামানো হয়েছে।

সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সুপ্রিম কোর্ট, পার্লামেন্ট হাউস, প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্টের বাসভবন, সচিবালয় ও কূটনৈতিক এলাকার সুরক্ষা নিশ্চিত করবে সেনাবাহিনী।

ইমরানের দল পিটিআইয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ইমরান প্রথমে সেনটরেস ব্রিজের কাছে ভাষণ দেবেন। তারপর ডি-চকে যাবেন অবস্থান-বিক্ষোভের জন্য। ইমরান খান ঘোষণা করে দিয়েছেন, সরকার যতক্ষণ পর্যন্ত নির্বাচনের ঘোষণা না করছে, ততক্ষণ তিনি ও তার সমর্থকরা ডি-চকে থাকবেন এবং বিক্ষোভ দেখাবেন।

সরকার এই আজাদি মার্চের অনুমতি দিতে চায়নি। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, আজাদি মার্চ করা যাবে। মার্চ করার জন্য কাউকে জোর করে গ্রেপ্তার করা যাবে না। ইমরানও তার সমর্থকদের বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট মিছিলের অনুমতি দিয়েছে। তাই সকলে, বিশেষ করে নারী ও বাচ্চারা যেন মিছিলে যোগ দেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) ভোরে ইমরানের কনভয় ইসলামাবাদ প্রবেশ করেছে। ইমরান তার সমর্থকদের ডি-চকে পৌঁছাতে বলেছেন। পিটিআই কর্মীদের সঙ্গে পাঞ্জাব পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। দুই নেতাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। লাহোরে ইমরানের দলের নেতা ও কর্মীদের গাড়ি আক্রান্ত হয়েছে।

পিটিআই নেতাদের অভিযোগ, পাঞ্জাব পুলিশ সমানে কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটিয়েছে। নারী ও বাচ্চাদের উপর তারা মেয়াদ উত্তীর্ণ কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করেছে। ইসলামাবাদের ব্লু জোনেও পুলিশ সমানে কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করছে বলে পিটিআইয়ের দাবি।

ইমরানের কিছু সমর্থক ও কর্মী ইতোমধ্যেই ডি-চক পৌঁছে গেছেন। তারা দাবি করেছেন, পুলিশ কর্মীরা তাদের হাত নেড়ে স্বাগত জানিয়েছেন।

ইমরানের কনভয় খাইবার পাখতুনিয়া থেকে যাত্রা শুরু করে। পাঞ্জাবে পুলিশ রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে রেখেছিল। কিন্তু ইমরানের দলের কর্মীরা তা সরিয়ে দেন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রীর আবেদন, পাকিস্তানের সব মানুষ যেন রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ দেখান। ইমরানের দাবি, সবাই যদি রাস্তায় নামেন, তাহলে সরকারের কাছে বার্তা যাবে। তারা বুঝবে বিদেশ থেকে আমদানি করা এই সরকারকে মানুষ চায় না।

ইমরান বলেছেন, রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে তাদের মিছিল থামানো যাবে না। তার অভিযোগ, সরকারে একদল চোর বসে আছে। এই সরকারকে বাইরে থেকে আমদানি করা হয়েছে। দেশের মানুষ তাদের মেনে নেবে না।

About

Popular Links