Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ছেলে সন্তান না হওয়ায় স্বামীর প্রতিনিয়ত নির্যাতন, যুক্তরাষ্ট্রে ভারতীয় নারীর আত্মহত্যা

আত্মহত্যার আগে ওই ভারতীয় নারী  স্বামীর নির্যাতনের বিষয়ে বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ভিডিও আপলোড করেন, যা ব্যাপক ভাইরাল হয়

আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২২, ০৩:৫৪ পিএম

২০১৫ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন মনদীপ কৌর (৩০) এবং রণজোধবীর সিং। সাত বছরের বিবাহিত জীবনে এ ভারতীয় দম্পতি দুবার কন্যা সন্তানের মুখ দেখেছেন। কিন্তু ছেলে সন্তানের জন্ম দিতে না পারায় প্রতিনিয়ত স্ত্রী মনদীপের ওপর নির্যাতন চালাতেন রণজোধবীর।

বছরের পর বছর এ মনদীপ স্বামীর নির্যাতন মুখ বুজে সহ্য করে আসছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি নতি স্বীকারে বাধ্য হন। কয়েকদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে এ ভারতীয় নারী আত্মহত্যা করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আত্মহত্যার আগে মনদীপ কৌর বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) স্বামীর নির্যাতনের বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ভিডিও আপলোড করেন, যা পরে ব্যাপক ভাইরাল হয়।

ভিডিওতে মনদীপ কৌর বলেন, “৮ বছর হয়ে গেছে। আমি আর এখন প্রতিদিন স্বামীর মারধর সহ্য করতে পারি না. . .বাবা, আমাকে ক্ষমা করো। আমি মৃত্যুর পথ বেছে নিচ্ছি।”

এদিকে, রবিবার মনদীপ কৌরের বাবা জসপাল সিং জানান, বিয়ের পর থেকেই যে মনদীপের ওপর রণজোধবীর যে নির্যাতন চালাতো, তা তিনি অনেক আগে থেকেই জানতেন। প্রথম কন্যাসন্তানের জন্মের পর মনদীপের ওপর রণজোধবীরের নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়, যা পরের কন্যাসন্তান পৃথিবীর আলো দেখার পর আরও খারাপের দিকে যায়।

মনদীপের মৃত্যুর পর রণজোধবীর সিং এবং তার পরিবারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন জসপাল সিং। আপাতত মনদীপের পরিবার ছয় এবং চার বছর বয়সী দুই মেয়ের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত।

জসপাল সিং আরও জানান, মনদীপের পরিবার কয়েক বছর আগে নিউইয়র্কে একটি মামলা করেছিল। তবে মনদীপ সেবার তাদের মামলা প্রত্যাহার করে নিতে বলেন। পরে মনদীপের পরিবার ভারত সরকারের সাহায্য চেয়েছিলেন।

টুইটারে নিউইয়র্কে ভারতের কনস্যুলেট জেনারেল বলেন, “মার্কিন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হচ্ছে...আমরা সব ধরনের সহায়তা দিতে প্রস্তুত।”

About

Popular Links