Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রাশিয়া সংযুক্ত যেকোনো অঞ্চলের পূর্ণ সুরক্ষার প্রতিশ্রুতি ল্যাভরভের

চারদিনের গণভোট অনুসরণ করে নব্য-নাৎসি শাসনের অপব্যবহারে ভুক্তভোগীদের ইচ্ছার অভিব্যক্তিকে রাশিয়া সম্মান জানাবে বলে মন্তব্য করেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:১১ পিএম

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ইউক্রেনের যে অঞ্চলগুলোতে “ব্যাপকভাবে উপহাস করা” গণভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে, সেগুলো যদি মস্কো দ্বারা সংযুক্ত হয় তাহলে তা রাশিয়ার পূর্ণ সুরক্ষার অধীনে থাকবে। ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন আরও বাড়তে পারে, এমন আশঙ্কার মধ্যেই রুশ শীর্ষ কূটনীতিক এ মন্তব্য করেন।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে (ইউএনজিএ) ৭৭তম অধিবেশনে নিজের ভাষণে এই কথা বলেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

রাশিয়ার সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার গত শুক্রবার পূর্ব ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলে গণভোট শুরু হয়েছে। কিয়েভের অভিযোগ, চার দিনব্যাপী এই গণভোটে ওই অঞ্চলের বাসিন্দাদের ভোট দিতে বাধ্য করা হচ্ছে এবং ভোটের সময়ে ওই অঞ্চল ছেড়ে যাওয়ার অনুমতিও দেওয়া হয়নি।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে নিজের ভাষণের পর এক সংবাদ সম্মেলনে সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, “যারা বহু বছর ধরে নব্য-নাৎসি শাসনের অপব্যবহারে ভুগছে, এই গণভোট অনুসরণ করে রাশিয়া অবশ্যই তাদের ইচ্ছার অভিব্যক্তিকে সম্মান জানাবে।”

ইউক্রেনের সংযুক্ত অঞ্চলগুলোকে রক্ষার জন্য রাশিয়ার কাছে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের ভিত্তি আছে কি-না জানতে চাইলে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “রাশিয়ার ভূখণ্ডসহ ভবিষ্যতে দেশটির সংবিধানে থাকা আরও সংরক্ষিত অঞ্চলগুলোও রাষ্ট্রের সম্পূর্ণ সুরক্ষার অধীনে রয়েছে।”

পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়ে রাশিয়ার মতবাদের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এসব অঞ্চলে রুশ ফেডারেশনের সব আইন, মতবাদ, ধারণা এবং কৌশলগুলো প্রযোজ্য।”

গত বৃহস্পতিবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মিত্র এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ হুঁশিয়ারি জানিয়ে বলেন, “রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত অঞ্চলগুলোকে রক্ষা করতে কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্রসহ মস্কোর অস্ত্রাগারের যেকোনো অস্ত্র ব্যবহার করা যেতে পারে।”

ল্যাভরভের মন্তব্য এবং পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ে ধোঁকা না দেওয়ার বিষয়ে পুতিনের আগের বিবৃতিকে দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং একদম অগ্রহণযোগ্য অ্যাখ্যা দিয়েছেন ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে দিমিত্রো কুলেবা বলেন, “ইউক্রেন হাল ছাড়বে না। আমরা সব পারমাণবিক শক্তিকে এখনই কথা বলার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে বিশ্বকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলা বাগাড়ম্বর যে সহ্য করা হবে না, সেটাও রাশিয়াকে স্পষ্ট করে দিচ্ছি।”

আত্মরক্ষায় সহায়তার জন্য ইউক্রেনকে অস্ত্র পাঠাচ্ছে বলে যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যদেরকে সংঘাতের পক্ষ হিসেবে অভিযুক্ত করেছে রাশিয়া। সংযোজিত ইউক্রেনীয় ভূখণ্ডের অঞ্চলগুলোতে রাশিয়া কীভাবে পশ্চিমা অস্ত্র ব্যবহারের প্রতিক্রিয়া জানাতে পারে, সেই প্রশ্নও উঠেছে।

গণভোটের বিষয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠকের অনুরোধ করেছে ইউক্রেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওলেগ নিকোলেনকো টুইটারে বলেন, জাতিসংঘ সনদ লঙ্ঘন করে ইউক্রেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সীমানা পরিবর্তনের প্রচেষ্টার জন্য রাশিয়াকে জবাবদিহি করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে।

About

Popular Links