Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কলকাতায় গাছের ছত্রাকে আক্রান্ত হলো মানুষ

বিশ্বে এ ধরনের ঘটনা এটাই প্রথম

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৩৩ এএম

বিশ্বে প্রথমবারের মতো কোনো মানুষের শরীরে উদ্ভিদ ছত্রাকজনিত রোগ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত হওয়া ওই ব্যক্তি ভারতের কলকাতার একজন উদ্ভিদ মাইকোলজিস্ট। দীর্ঘদিন ধরে তিনি গবেষণার অংশ হিসেবে ক্ষষিষ্ণু উপাদান, মাশরুম এবং বিভিন্ন উদ্ভিদ ছত্রাক নিয়ে কাজ করছিলেন। দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

ছত্রাকে আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসকরা একটি গবেষণা প্রতিবেদন লিখেছেন। গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, এই ঘটনা দেখিয়ে দিচ্ছে কীভাবে উদ্ভিদ ছত্রাকের খুব কাছাকাছি থাকলে তা মানুষের দেহে সংক্রমিত হতে পারে।

মেডিকেল মাইকোলজি কেস রিপোর্টস নামের একটি জার্নালে এই গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে ৬১ বছর বয়সী আক্রান্ত ব্যক্তির নাম প্রকাশ হয়নি। এতে বলা হয়, তিন মাস ধরে কর্কশ কণ্ঠস্বর, কাশি, ক্লান্তি এবং গিলতে অসুবিধার মতো উপসর্গে ভুগতে থাকার পর কলকাতার একটি হাসপাতালের শরণাপন্ন হন।

আক্রান্ত ব্যক্তির ডায়বেটিস, এইচআইভি সংক্রমণ, রেনাল রোগ, কোনো দীর্ঘস্থায়ী রোগ, ইমিউনোসপ্রেসিভ ওষুধ সেবন বা মানসিক আঘাতের ইতিহাস নেই। 

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কনড্রোস্টেরিয়াম পারপিউরিয়াম নামের একটি উদ্ভিদ ছত্রাক গাছে রূপালী পাতা রোগের জন্ম দেয়। বিশেষ করে গোলাপ জাতের উদ্ভিদে। এই প্রথম উদ্ভিদ ছত্রাক দ্বারা কোনো মানুষ আক্রান্ত হলেন। প্রচলিত পদ্ধতি (মাইক্রোস্কপি ও কালচার) এই ছত্রাক শনাক্তে ব্যর্থ হয়েছে।

গবেষণাটি পরিচালনা করেছেন কলকাতার অ্যাপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটালের ডা. সোমা দত্ত ও ডা. উজ্জ্ববীনী রায়।

গবেষকরা বলেছেন, শুধু নিবিড় সিকুয়েন্সিং এই অস্বাভাবিক প্যাথোজেন শনাক্ত করতে পারে। এই ঘটনা দেখিয়ে দিচ্ছে, পরিবশেগত উদ্ভিদ ছত্রাক মানুষের দেহে রোগ সৃষ্টি করতে পারে। রোগ ছড়ানো ছত্রাকের প্রজাতি শনাক্ত করতে আণবিক (মলিকিউলার) কৌশল ব্যবহারে গুরুত্বারোপ করছে।

তারা বলছেন, ক্ষয়িষ্ণু উপাদানের বারবার সংস্পর্শ এই বিরল সংক্রমণের কারণ হতে পারে। ম্যাক্রোস্কোপিক ও মাইক্রোস্কোপিক মরফোলজিতে ছত্রাকের সংক্রমণ স্পষ্ট ছিল। কিন্তু সংক্রমণের প্রকৃতি, বিস্তারের সম্ভাবনা ইত্যাদি নিশ্চিত করা যায়নি।

About

Popular Links