Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘হিন্দুরা গরুকে মায়ের সম্মান দেয়, এই পশু কোরবানি করবেন না’

ভারতের দারুল উলুম দেওবান্দও দুই বছর আগে গো হত্যা না করার আহ্বান জানিয়েছিল। এছাড়া আসামের জামায়েত উলেমা হিন্দও গরু কোরবানি না করার বিষয়ে মতামত দিয়েছিল

আপডেট : ০৪ জুলাই ২০২২, ০৭:৩৭ পিএম

ইসলাম ধর্মে পশু হত্যার অনুমোদন নেই জানিয়ে আসন্ন ঈদ-উল-আজহায় গরু কোরবানি না করার আহ্বান জানিয়েছেন অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের প্রধান ও ভারতীয় পার্লামেন্ট মেম্বার বদরুদ্দিন আজমল।

হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে আজমলকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, হিন্দুধর্মাবলম্বীরা গরুকে মায়ের সম্মান দেয়। এই কারণে এই মুসলিম নেতা গরু কোরবানি না করার আহ্বান জানিয়েছেন। তার আহ্বানকে স্বাগত জানিয়েছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ।

বদরুদ্দিন আজমল জানান, ভারতে নানা ধর্ম, জাতি, গোত্রের মানুষ বাস করেন। এই দেশে সনাতন ধর্মের মানুষেরা “গরু”কে পবিত্র হিসাবে মনে করেন। তাই তিনি এই পশু হত্যা না করার আহ্বান জানান। 

তিনি দাবি করেন, ভারতের দারুল উলুম দেওবান্দও দুই বছর আগে গো হত্যা না করার আহ্বান জানিয়েছিল। এছাড়া আসামের জামায়েত উলেমা হিন্দও গরু কোরবানি না করার বিষয়ে মতামত দিয়েছিল।

বদরুদ্দিন আজমলের এই আহ্বানকে স্বাগত জানিয়েছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। সংগঠনের নেতা বিনোদ বনশল হিন্দুস্তান টাইমসকে জানান, “মুসলমান নেতাদের গো হত্যা বন্ধের বিষয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।” 

উল্লেখ্য, কট্টরপন্থী হিন্দুত্ববাদী ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ক্ষমতায় আসার পর থেকে গো হত্যাকে কেন্দ্র করে ভারতে নানা ধরনের ঘটনা ঘটেছে। গরুর মাংস গাড়িতে রাখার দায়ে পিটিয়ে হত্যার মতো ঘটনাও ঘটেছে।

গো হত্যাকে কেন্দ্র করে তখন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, গো-রক্ষার নাম করে মানুষ হত্যা গ্রহণযোগ্য নয়।

এছাড়া ২০১৭ সালের দিকে ভারতের গুজরাট রাজ্য বিধানসভায় গো সুরক্ষা আইন সংশোধনের মাধ্যমে আইন লঙ্ঘনের জন্য আগের চেয়ে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করার আইন করা হয়। “গো-হত্যা” করলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের মতো বিধানও ছিল আইনটিতে।

গুজরাটে ১৯৫৪ সালে প্রাণী সুরক্ষা আইন হয়। এটি এর আগে সর্বশেষ ২০১১ সালে সংশোধন করা হয়েছিল। ২০১৭ সালের প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছিল, গো-হত্যা করলে সর্বোচ্চ ১০ বছর এবং সর্বনিম্ন ৭ বছর সাজা হতে পারে। সংশোধিত নতুন আইন অনুযায়ী, কারও কাছে গরুর মাংস পাওয়া গেলে এক থেকে পাঁচ লাখ রুপি পর্যন্ত জরিমানা করা হবে।

About

Popular Links