Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

লন্ডনে চুরি যাওয়া বেন্টলি উদ্ধার হলো করাচিতে!

গাড়িটি অন্য একজনের মাধ্যমে কিনেছেন বলে গাড়ির পাকিস্তানি মালিক দাবি করেছেন 

আপডেট : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৩৬ পিএম

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন থেকে চুরি যাওয়া একটি বেন্টলি মুলসান গাড়ি পাকিস্তানের বন্দরনগরী করাচি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) করাচি শহরের ডিএইচএ এলাকার একটি বাড়িতে পার্ক করা অবস্থায় গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। 

রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম জিও নিউজ।

করাচির কালেক্টরেট অব কাস্টমস এনফোর্সমেন্ট (সিসিই) জানায়, গাড়িটি করাচির ডিএইচএ এলাকার একটি বাড়িতে পার্ক করা রয়েছে বলে পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষকে জানায় যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা। এরপরই সেটি উদ্ধার করেন পাকিস্তানের কর্মকর্তারা।

গাড়িটি চুরির পর এতে সংযুক্ত ট্রেসিং ট্র্যাকার অপসারণ বা বন্ধ করতে ব্যর্থ হয় অপরাধীরা। আর এর ফলে উন্নত ট্র্যাকিং সিস্টেমের মাধ্যমে গাড়ির সঠিক অবস্থান খুঁজে পায় যুক্তরাজ্য কর্তৃপক্ষ।

ফেডারেল বোর্ড অব রেভিনিউস কালেক্টরেট অব কাস্টমস এক বিবৃতিতে বলেছে, বন্ধুত্বপূর্ণ একটি দেশের জাতীয় সংস্থা থেকে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পাওয়া যায় একটি ধূসর রংয়ের বেন্টলি মুলসান গাড়ি করাচি শহরের ডিএইচএ এলাকার একটি বাড়িতে পার্ক করা রয়েছে। ভি৮ অটোমেটিক এই গাড়িটির ভিআইএন নম্বর SCBBA63Y7FC001375, ইঞ্জিন নম্বর CKB304693। গাড়িটি চুরির পর এতে সংযুক্ত ট্রেসিং ট্র্যাকার অপসারণ বা বন্ধ করতে ব্যর্থ হয় অপরাধীরা। আর এর ফলে উন্নত ট্র্যাকিং সিস্টেমের মাধ্যমে গাড়ির সঠিক অবস্থান খুঁজে পায় যুক্তরাজ্য কর্তৃপক্ষ।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিও নিউজ কাস্টমস কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, চুরি যাওয়া গাড়িটি ইউরোপের একটি দেশের কনস্যুলেটের জাল নথিতে পাকিস্তানে আনা হয়েছিল। এফবিইউ কর্মকর্তারা যখন করাচির ওই বাড়িতে অভিযান চালান তখন তারা বেন্টলির গাড়ির পেছনে পাকিস্তানি রেজিস্ট্রেশন নম্বরযুক্ত প্লেট দেখতে পায়।

গাড়িটি অন্য একজনের মাধ্যমে কিনেছেন বলে গাড়ির পাকিস্তানি মালিক দাবি করেছেন। পাকিস্তানের কাস্টমস এ বিষয়ে একটি মামলা নথিভুক্ত করেছে ও গাড়ির বিক্রয় ও ক্রয়ের সাথে জড়িত দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- করাচির ১০নং সাউথ স্ট্রিটের বাসিন্দা শফি আহমেদের ছেলে জামিল শফি ও খায়াবন-ই-রুমির ১৫৯ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা রফিকের ছেলে নাভিদ বিলওয়ানি।

করাচির এক কাস্টমস কর্মকর্তা বলছেন, ‘‘গাড়িটি কিভাবে করাচিতে এলো তা আমরা তদন্ত করে দেখছি। নিশ্চিতভাবেই, জাল চালান এবং ভুয়া নিবন্ধন ডকুমেন্টেশন নিয়ে করাচিতে পৌঁছেছিল এই গাড়িটি।’’

About

Popular Links