Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ক্রুর হাতে যাত্রীর কামড়, বিমানের জরুরি অবতরণ

উড়োজাহাজের কোনো ত্রুটি কিংবা আবহাওয়ার কোনো কারণ নয় ফ্লাইটের অবতরণের কারণ ছিল ক্রুর হাতের আঙুলে যাত্রীর কামড়ে দেওয়া

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২২, ১১:২৪ পিএম

তুরস্কের ইস্তাম্বুল থেকে জাকার্তার উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল তার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট। তবে মাঝ আকাশে ঘটে বিপত্তি। এর জেরে উড়োজাহাজটিকে জরুরি অবতরণ করান পাইলট।

তবে এই জরুরি অবতরণের পেছনের ঘটনা সামনে আসতেই অবাক অনেকেই। উড়োজাহাজের কোনো ত্রুটি কিংবা আবহাওয়ার কোনো কারণ নয় বরং এই অবতরণের কারণ ছিল ক্রুর হাতের আঙুলে যাত্রীর কামড়ে দেওয়া!

গত সপ্তাহে ঘটেছে এমন ঘটনা। ওই ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এনিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে খবরও প্রকাশ হয়েছে।

প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টকে ঘুষি মারছেন। হতবাক যাত্রী ও অন্যান্যরা তখন আক্রান্ত ক্রুকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন। অন্য এক ক্রু ওই যাত্রীকে আসনে বসিয়ে দিতে গেলে তাকেও লাথি মারা হয়। পরে পাল্টা লাথি মারেন ওই ক্রুও। ফলে পরিস্থিতিকে আরও বেগতিক হয়ে পড়ে। মূলত এক যাত্রী এয়ারলাইন্সের ক্রুর হাতের আঙুলে কামড় দেওয়ায় বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়।

ভারতের সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশ অভিযুক্ত যাত্রীকে শনাক্ত করেছে।

ওই ব্যক্তি ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক মুহাম্মদ জন জায়েজ বোদেউইজন (৪৮)। তুরস্কে ব্যক্তিগত সফর শেষে জন জায়েজ জাকার্তায় ফিরছিলেন।

গত ১১ অক্টোবর টার্কিশ এয়ারলাইন্সের টিকে৫৬ নম্বর ফ্লাইটের এক ইন্দোনেশিয়ান যাত্রী ক্রুকে লাঞ্ছিত করেন। ফ্লাইটটি জাকার্তা পৌঁছনোর আগে ইন্দোনেশিয়ার মেদান বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করা হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, ওই যাত্রী বাটিক এয়ার ইন্দোনেশিয়ার পাইলট, যিনি তুরস্কে ছুটি কাটিয়ে ফিরছিলেন।

ফ্লাইট কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, অভিযুক্ত যাত্রী মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন এবং আক্রান্ত হওয়া ওই ক্রু তাকে শান্ত করতে গিয়েছিলেন। জন জায়েজ বউদেউইজন ফ্লাইটের মধ্যেই উৎশৃঙ্খল আচরণ করছিলেন। এ সময় তিনি ক্রুর আঙুল কামড়ে দেন।

About

Popular Links