Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পারস্য সাগরে ১ কোটি লিটার চোরাই তেলবাহী জাহাজ জব্দ

সোমবার দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ হরমোজগানের পারস্য উপসাগরের উপকূল থেকে আইআরজিসির সদস্যরা ক্যাপ্টেন ও ক্রুসহ জাহাজটি আটক করেন

আপডেট : ০১ নভেম্বর ২০২২, ১২:০৮ এএম

চুরি করা তেল নিয়ে যাওয়ার সময় পারস্য উপসাগর থেকে ১ কোটি ১০ লাখ লিটার তেলসহ একটি ট্যাংকার আটক করেছে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে সোমবার (৩১ অক্টোবর) এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইরানের বিচার বিভাগের হরমোজগান প্রাদেশিক শাখার এক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোজতবা ঘাহরেমানি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

খবরে বলা হয়, সোমবার দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ হরমোজগানের পারস্য উপসাগরের উপকূল থেকে আইআরজিসির সদস্যরা ক্যাপ্টেন ও ক্রুসহ জাহাজটি আটক করেন।

ঘাহরেমানি বলেন, ‘‘আইআরজিসিকে বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তদন্তের অংশ ‍হিসেবে আটকৃত বিদেশি জাহজটির ক্যাপ্টেন ও ক্রুদের জিজ্ঞাসাবাদ করাও শুরু হয়েছে।''

তবে জাহাজটি কোন দেশের বা কোন পতাকাবাহী সে বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি।

ইরানি এই কর্মকর্তা বলেন, ‘‘জাহাজটি থেকে উদ্ধার হওয়া জ্বালানি তেলের বর্তমান বাজারমূল্য ২ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ইরানি রিয়াল বা প্রায় ৬ কোটি ৬০ লাখ ডলার। তাসনিম নিউজে সেই ট্যাংকার জাহাজটির একটি ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।''

মোহসিন ঘাহরেমানি বলেন, ‘‘আমাদের ধারণা, গত কয়েক দিন ধরে ইরানের জলসীমার ধারে কাছে বিচরণ করছিল এই ট্যাংকার জাহাজটি, এবং এই সময়সীমায় ইরানের স্থানীয় কিছু লাইটার জাহাজ ও নৌযান থেকে তেল (জাহাজটিতে) তেল সরবরাহ করা হয়েছে। দেশের মধ্যে কারা এই পাচারের সঙ্গে যুক্ত— সেই বিষয়ক তদন্তও শুরু হয়েছে।''

পরমাণু প্রকল্প নিয়ে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার জেরে গত কয়েক বছরে দুর্বল হয়ে পড়েছে ইরানের অর্থনীতি। দেশটির মুদ্রা ইরানি রিয়ালের দামও কমে গেছে। সেই সঙ্গে দেশটির উপকূলীয় অঞ্চল দিয়ে ব্যাপকভাবে বাড়ছে জ্বালানি তেলের চোরাচালান।

সাম্প্রতিক বছরে আইআরজিসির আটক করা চোরাই তেলের জাহাজের মধ্যে এটি অন্যতম বড়।

মোজতবা ঘাহরেমানি জানিয়েছেন, ‘‘অবৈধ অনুপ্রবেশ ও চোরাচালানের দায়ে গ্রেপ্তার ক্যাপ্টেন ও ক্রুদের কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হবে। সেই সঙ্গে আটক জাহাজটিও ইরান সরকারের হেফাজতে রাখা হবে।''

About

Popular Links