Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে উড়ছে চীনা নজরদারি বেলুন’

বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন জানিয়েছে, চীনা এই গোয়েন্দা বেলুন যুক্তরাষ্ট্রের ‘অত্যন্ত সংবেদনশীল’ সামরিক ও পারমাণবিক স্থাপনার ওপর দিয়ে উড়ছে

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৯:১৬ এএম

সন্দেহভাজন চীনা নজরদারি বেলুন যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে বেশ কয়েকদিন ধরে উড়ছে বলে দাবি করেছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন। 

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) পেন্টাগন জানিয়েছে, চীনা এই গোয়েন্দা বেলুন যুক্তরাষ্ট্রের “অত্যন্ত সংবেদনশীল” সামরিক ও পারমাণবিক স্থাপনার ওপর দিয়ে উড়ছে। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দপ্তরের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশনায় প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন ও জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তারা বেলুনটি গুলি করে ভূপাতিত করার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছেন। তবে বেলুনটি যেসব এলাকার ওপর দিয়ে উড়ছিল, সেখানে বসবাসরত মানুষের ক্ষতি বিবেচনা করে তা আর করা হয়নি।

বেলুনটি যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের আকাশে দেখা গেছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান। ওই অঞ্চলে মার্কিন বাহিনীর বিমানঘাঁটি, ভূগর্ভস্থ কৌশলগত ক্ষেপণাস্ত্রকেন্দ্র রয়েছে। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই কর্মকর্তা বলেন, “স্পষ্টত, এ বেলুনের উদ্দেশ্য ছিল অত্যন্ত সংবেদনশীল এলাকাগুলোর ওপর নজরদারি করা।”

তবে পেন্টাগন এ ঘটনাকে বিপজ্জনক গোয়েন্দা–হুমকি হিসেবে বিবেচনা করতে নারাজ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের ওই কর্মকর্তা বলেন, “চীনা নজরদারি বেলুনটি কয়েক দিন আগে মার্কিন আকাশসীমায় ঢুকেছিল এবং আমাদের গোয়েন্দারা এর উপস্থিতি শনাক্ত করতে সক্ষম হন। তবে এটি খুব বেশি গোয়েন্দা–তথ্য সংগ্রহ করতে পারবে না।”

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশনায় লয়েড অস্টিন বুধবার পেন্টাগনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বেলুনটি ভূপাতিত করার বিকল্প নিয়ে আলোচনা করেন। এ সময় অস্টিন ফিলিপাইন সফর করছিলেন। আর বেলুনটি যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চলের অঙ্গরাজ্য মনটানার আকাশে অবস্থান করছিল।

পরে বেলুনটির সর্বশেষ গতিবিধি ও কার্যক্রম যাচাই করতে যুদ্ধবিমান পাঠানো হয়। ওই কর্মকর্তা বলেন, চীনা বেলুনটি ধ্বংস করার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে পেন্টাগন। এটির ধ্বংসাবশেষের আঘাত থেকে ভূমিতে থাকা মানুষদের রক্ষা করতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর বেলুনটি অনেক ওপর দিয়ে উড়ছে। তাই বাণিজ্যিক উড়োজাহাজের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও নেই।

ফাউন্ডেশন ফর ডিফেন্স অব ডেমোক্রেসিসের চীন বিশেষজ্ঞ ক্রেগ সিঙ্গেলটন বলেছেন, “এই ধরনের বেলুনগুলো স্নায়ুযুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়ন ব্যাপকভাবে ব্যবহার করেছিল। এটি কম খরচে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহের একটি পদ্ধতি ছিল।”

About

Popular Links