Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সিরিয়ায় ভূমিকম্পের ধ্বংসস্তূপের নিচে জন্ম নিলো শিশু

৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্পে শিশুটির মাসহ পরিবারের সবাই মারা গেছে

আপডেট : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১:১৯ পিএম

শক্তিশালী ভূমিকম্পে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে সিরিয়া। এ ধ্বংসস্তুপের মধ্যে থেকেই এক নবজাতক শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। শিশুটিকে যখন উদ্ধার করা হয় তখনও মৃত মায়ের সঙ্গে তার নাড়ি জুড়েই ছিল।

সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) শক্তিশালী ওই ভূমিকম্প তুরষ্ক ও সিরিয়ার সীমান্ত এলাকায় আঘাত হানে। এতে দুই দেশের বহু অঞ্চল ধ্বংসস্তুপে রূপ নেয়।

স্থানীয় উদ্ধার কর্মকর্তা খলিল আল-সুওয়াদি বলেন, ৭.৮ মাত্রার ওই ভূমিকম্পে শিশুটির মাসহ পরিবারের সবাই মারা গেছে। 

মঙ্গলবার সুওয়াদি এএফপিকে বলেন, আমরা খনন করার সময় একটি আওয়াজ শুনতে পাই। বর্জ্য সরিয়ে দেখি শিশুটি মায়ের কাছে রয়েছে। তার নাড়িটি তখনও জুড়ে আছে। আমরা নাড়ি কেটে তার এক চাচাতো ভাইকে দিয়ে তাকে হাসপাতালে পাঠাই।

এদিকে শিশুটিকে উদ্ধারের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, ধসে পড়া চারতলা ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে ধুলোয় ঢেকে থাকা একটি ছোট্ট শিশুকে আঁকড়ে ধরে আছেন এক ব্যক্তি।

শূন্য ডিগ্রির নিচে তাপমাত্রা থাকা অঞ্চলে জন্মানো শিশুটির সুরক্ষায় তাকে আরেক ব্যক্তি একটি কম্বলে জড়িয়ে নেন। আরেকজন তার জন্য গাড়ির ব্যবস্থা করছিলেন।

শিশুটিকে পার্শ্ববর্তী আফরিন হাসপাতালে নেওয়া হয়। একই সময় ধ্বংস হওয়া বাড়ি থেকে শিশুটির বাবা আবদুল্লাহ, মা আফরা, চার ভাইবোন ও এক খালার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার পরিবারের অন্য সব সদস্যদের শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়। সুওয়াদি বলেন, শিশুটির বাবা চাচাতো ভাইবোন ছিল। তারা একই পরিবারে ছিল সেদিন। সেখানেই তাদের মৃত্যু হয়।

কর্তৃপক্ষ জানায়, ভূমিকম্পে সিরিয়াজুড়ে ১,৬০০ জন ও তুরস্কে ৩,৪০০ জনেরও বেশি নিহত হয়েছে।

সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত শহর ও অঞ্চলগুলোতে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৮০০। আফরিনের হাসপাতালের একটি ইনকিউবেটরের ভেতরে নবজাতককে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার শরীরে কাঁটাছেড়ার দাগ ছিল।

শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ হানি মারুফ বলেন, তার কপাল ও আঙ্গুলগুলি ঠান্ডা থেকে নীল হয়ে গেছে। সে খুবই খারাপ অবস্থায় এসেছিল। তবে এখন অবস্থা অনেকটাই ভালো।

তিনি এএফপিকে বলেন, তার সারা শরীরে বেশ কিছু ক্ষত ও আঘাতের চিহ্ন ছিল।

২০১৮ সালে কুর্দি বাহিনীকে তাড়িয়ে তুরস্ক ও তাদের সমর্থিত সিরিয়ান বিদ্রোহীরা আফরিন অঞ্চল দখল নেয়।

সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় কাজ করা হোয়াইট হেলমেটস রেসকিউ গ্রুপের মতে, ওইসব এলাকায় ২১০টিরও বেশি ভবন একেবারে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। আরও ৫২০টি ভবন আংশিকভাবে ধ্বংস হয়ে গেছে, এবং আরও হাজার হাজার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

হোয়াইট হেলমেট টুইটারে বলেছেন, আমরা সমস্ত মানবিক সংস্থা এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কাছে সহায়তা চেয়ে আবেদন করছি। সময় ফুরিয়ে আসছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে এখনও শত শত মানুষ আটকা পড়ে আছে। প্রতি সেকেন্ডের অর্থ হতে পারে একটি জীবন বাঁচানো।

About

Popular Links