Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

চীনা বেলুনকাণ্ডের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে ফের ‘রহস্যজনক বস্তু’

এবার যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আলাস্কার আকাশে ‘রহস্যজনক বস্তুর’ দেখা পাওয়া গেছে। পরে যুদ্ধবিমান পাঠিয়ে তা ধ্বংস করা হয়েছে। বস্তুটি সম্পর্কে নিশ্চিত করে কিছু জানাতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১০:৩৭ এএম

চীনা গোয়েন্দা বেলুন ধ্বংস করা নিয়ে উত্তেজনার মধ্যেই এবার যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আলাস্কার আকাশে “রহস্যজনক বস্তুর” দেখা পাওয়া গেছে। পরে যুদ্ধবিমান পাঠিয়ে তা ধ্বংস করা হয়েছে। বস্তুটি সম্পর্কে নিশ্চিত করে কিছু জানাতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন।

শুক্রবার (১০ ফেব্রুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আলাস্কার আকাশে ওই বস্তুকে উড়তে দেখা যায়। আকাশে ৪০ হাজার ফুট ওপর দিয়ে সেটি উড়ছিল বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, “আলাস্কার আকাশে শনাক্ত করা উড়ন্ত বস্তুটি আসলে কী ছিল, সেটি এখনো জানা যায়নি। সেটার উদ্দেশ্য ও কোথা থেকে এসেছে তাও জানা যায়নি। বস্তুটি ৪০ হাজার ফুট ওপর দিয়ে উড়ছিল। তাই উড়োজাহাজ চলাচলে ঝুঁকি বিবেচনায় সেটিকে ভূপাতিত করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সামরিক বাহিনীকে বস্তুটি ধ্বংস করার নির্দেশ দিয়েছেন। মূলত, এর পরপরই যুদ্ধবিমান পাঠিয়ে সেটিকে ভূপাতিত করা হয়।”

অজানা বস্তুটিকে ধ্বংস করার ঘটনাকে “সফলতা” হিসেবে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র। বস্তুটি এর আগে ধ্বংস করা চীনা গোয়েন্দা বেলুনের তুলনায় বেশ ছোট। এটি একটি ছোট প্রাইভেট কারের সমান।

জন কিরবি বলেন, “এ বস্তু কোথা থেকে এসেছে, কোনো দেশ পাঠিয়েছে, নাকি কোনো করপোরেট প্রতিষ্ঠানের এটি, কী উদ্দেশ্যে বস্তুটি আলাস্কার আকাশে উড়ছিল- এসব প্রশ্নের উত্তর খোঁজা হচ্ছে।”

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল প্যাট রাইডার জানান, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের নির্দেশ পাওয়ার পর আলাস্কার আকাশে এফ-২২ র‌্যাপ্টর যুদ্ধবিমান ওড়ানো হয়। পরে সেটি এআইএম-৯এক্স ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে রহস্যজনক বস্তুটি ধ্বংস করে। একই যুদ্ধবিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে চীনা গোয়েন্দা বেলুনটিও ধ্বংস করা হয়েছিল।

গত ২ ফেব্রুয়ারি পেন্টাগন জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের আকাশে গোয়েন্দা বেলুনের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। চীনের এ বেলুন যুক্তরাষ্ট্রের “অত্যন্ত সংবেদনশীল” সামরিক ও পারমাণবিক স্থাপনার ওপর দিয়ে উড়ছিল। এটি প্রায় ২০০ ফুট (৬০ মিটার) লম্বা ছিল। পরে এফ-২২ যুদ্ধবিমান থেকে একটি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে বেলুনটি ধ্বংস করে মার্কিন সামরিক বাহিনী। বেলুনটির ধ্বংসাবশেষ আটলান্টিক মহাসাগরে যুক্তরাষ্ট্রের জলসীমায় পড়ে। 

পরে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়ে দেয়, ওই ধ্বংসাবশেষ তারা চীনকে ফেরত দেবে না। এ ঘটনায় চীন-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার জেরে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন তার চীন সফর স্থগিত করেন। 

ব্লিঙ্কেন বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রের আকাশে চীনা গোয়েন্দা বেলুনের অনুপ্রবেশ দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ। এটা যুক্তরাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন ও আন্তর্জাতিক আইনপরিপন্থী কাজ।”

অবশ্য চীন এটিকে “অপ্রত্যাশিত” ঘটনা উল্লেখ করে জানায়, আবহাওয়া পর্যবেক্ষণের জন্য পাঠানো এ বেলুন বাতাসে ভেসে পথ ভুল করে যুক্তরাষ্ট্রে চলে গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের আকাশসীমায় অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে বেলুনটি উড়ে যাওয়ার এ ঘটনার জন্য বেইজিং দুঃখ প্রকাশ করে।

তবে যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে, চীনা বেলুনটি পাঁচটি মহাদেশজুড়ে ৪০টির বেশি দেশের ওপর দিয়ে উড়ে এসেছে। সন্দেহ করা হচ্ছে, প্রতিটি দেশের প্রতিরক্ষাসংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করেছে চীন।

About

Popular Links