Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিভিন্ন দেশের ৩০টি নির্বাচনে প্রভাব খাটিয়েছে ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠান

কোনো ফুটপ্রিন্ট ছাড়াই গোপনে নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার জন্য সেবা দেয় এই দলটি

আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৭:৩৩ পিএম

বিশ্বের ৩০টিরও বেশি নির্বাচনে হস্তক্ষেপ ও কারচুপিতে সহায়তা করেছে ইসরায়েলের একটি প্রতিষ্ঠান। মূলত হ্যাকিং, নাশকতা এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভুল তথ্য ছড়িয়ে তারা এই কাজটি করেছে।

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্যা গার্ডিয়ান।

সম্প্রতি সাংবাদিকদের একটি আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামের এক তদন্তে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

প্রতিবেদনে হানান ও তার ইউনিটের কর্মকাণ্ডের গোপন ফুটেজ ও নথিপত্রগুলো প্রকাশ করা হয়।

এতে বলা হয়, ঠিকাদারদের এই দলটিকে পরিচালনা করেন তাল হানান নামে ৫০ বছর বয়সী ইসরায়েলি স্পেশাল ফোর্স অপারেটিভ।

দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বিভিন্ন দেশে নির্বাচনে প্রভাব রাখা এই ব্যক্তির ছদ্মনাম “জর্জ”।

ফাঁস হওয়া তথ্যে দেখা যায়, ভুল তথ্যকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে টিম জর্জ সেটিকে কাজে লাগায়। কোনো ফুটপ্রিন্ট ছাড়াই গোপনে নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার জন্য সেবা দেয় তারা।

এরমাধ্যমে গোয়েন্দা সংস্থা, রাজনৈতিক প্রচারণা এবং ব্যক্তিগত সংস্থাগুলোর জন্য, যারা গোপনে জনমতকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায় তারা মূলত সেই সেবা নিয়ে থাকে।

সংস্থাটি আফ্রিকা, দক্ষিণ ও মধ্য আমেরিকা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপজুড়ে কাজ করেছে।

টিম জর্জের অন্যতম প্রধান সেবা হলো, একটি অত্যাধুনিক সফটওয়্যার প্যাকেজ, যার নাম অ্যাডভান্সড ইমপ্যাক্ট মিডিয়া সলিউশন বা এইমস।

এটি টুইটার, লিঙ্কডইন, ফেসবুক, টেলিগ্রাম, জিমেইল, ইনস্টাগ্রাম এবং ইউটিউবে হাজার হাজার ভুয়া অ্যাকাউন্টের একটি বিশাল বাহিনী নিয়ন্ত্রণ করে।

এই ভুয়া অ্যাকাউন্টগুলোর ক্রেডিট কার্ড, বিটকয়েন ওয়ালেট এবং এয়ারবিএনবি অ্যাকাউন্টসহ অ্যামাজন অ্যাকাউন্টও রয়েছে।

দ্য গার্ডিয়ান ও তাদের দল বিভিন্ন মাধ্যমে এইমসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট “নিয়ন্ত্রণ” কর্মকাণ্ডে নজরদারি করেছিল।

এতে দেখা যায়, যুক্তরাজ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, মেক্সিকো, সেনেগাল, ভারত এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ প্রায় ২০টি দেশে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভুয়া তথ্য প্রচার ও প্রচারণা পেছনে এইমস সফটওয়্যারটি সংশ্লিষ্টতা রয়েছে।

অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বাণিজ্যিক বিরোধপূর্ণ ইস্যুতে ভুয়া তথ্য ছড়াতে ব্যবহার করা হয়েছে সফটওয়্যারটিকে।

এদিকে এ ঘটনায় জানতে চাইলে “টিম জর্জের” কর্মকাণ্ড এবং পদ্ধতি সম্পর্কে বিশদ প্রশ্নের উত্তর দেননি হানান।

এমনকি নিজের কাজকে বৈধ দাবি করে তিনি বলেন, “আমি কোনো অন্যায় করিনি।”

About

Popular Links