Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মন্ত্রীদের গাড়ি নিলামে, বিলাসবহুল পণ্য নিষিদ্ধ পাকিস্তানে

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ দাবি করেছেন, তারা যে পদক্ষেপগুলো নিচ্ছেন তা বছরে ২০০ বিলিয়ন রুপি সাশ্রয়ে সহায়তা করবে

আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৯:৪৩ এএম

ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে দক্ষিণ এশিয়ার আরেক দেশ পাকিস্তান। সাম্প্রতিক সময়ে বন্যা দেশটিকে আরও বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দেয়। এ অবস্থায় অর্থ সাশ্রয়ের বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে দেশটির সরকার।

বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ দাবি করেছেন, তারা যে পদক্ষেপগুলো নিচ্ছেন তা বছরে ২০০ বিলিয়ন রুপি সাশ্রয়ে সহায়তা করবে। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম ডন।

ডন বলছে, এই ঘোষণাটি এমন সময়ে এলো যখন পাকিস্তান আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করছে। পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সম্প্রতি ৩ বিলিয়ন ডলারে নেমে যায়। এরপর থেকেই অর্থনৈকিত পুনরুদ্ধারে বেশ লড়াই শুরু হয়েছে দেশটিতে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “মন্ত্রিসভার সদস্যদের ব্যবহৃত সব বিলাসবহুল গাড়ি বাতিল করে নিলামে তোলা হবে। যেখানে প্রয়োজন সেখানে মন্ত্রীদের নিরাপত্তায় একটি মাত্র গাড়ি দেওয়া হবে। মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপদেষ্টারা স্বেচ্ছায় তাদের বেতন-ভাতা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এখন থেকে সব মন্ত্রী তাদের নিজস্ব টেলিফোন, বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাসের বিল পরিশোধ করবেন।”

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ জানান, ফেডারেল মন্ত্রীরা অভ্যন্তরীণ ভ্রমণ বা বিদেশে যাওয়ার সময় ইকোনমিক ক্লাসে ভ্রমণ করবেন। সাপোর্ট স্টাফদের আর রাষ্ট্রীয় সফরে যেতে দেওয়া হবে না এবং মন্ত্রিসভার সদস্যরা বিদেশ সফরের সময় পাঁচতারকা হোটেলে থাকতে পারবেন না।

অন্যতম অর্থনৈতিক সংস্কারের মধ্যে রয়েছে- মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও উপ-বিভাগের বর্তমান ব্যয় ১৫% কমানো হবে। এ সিদ্ধান্তের আলোকে সংশ্লিষ্ট প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তারা তাদের বাজেটে প্রয়োজনীয় পরিবর্তন করবেন।

২০২৪ সালের জুন মাস পর্যন্ত অর্থাৎ আগামী বছর পর্যন্ত বিলাসবহুল পণ্য কেনার ওপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পাকিস্তান। ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত সব ধরনের নতুন গাড়ি কেনার ওপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা থাকবে।

মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা যেসব সরকারি গাড়ি ব্যবহার করছেন, যারা ইতোমধ্যে গাড়ি মনিটাইজেশন সেবা নিয়েছেন সেগুলো ফেরত আনা হবে। সরকারি কর্মকর্তাদের আর নিরাপত্তার গাড়ি দেওয়া হবে না। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর তত্ত্বাবধানে একটি কমিটি পরিস্থিতির বিবেচনা করে কেস-টু-কেস ভিত্তিতে নিরাপত্তা গাড়ি সরবরাহের অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

যেকোনো ক্যাবিনেট সদস্য বা সরকারি কর্মকর্তা বিলাসবহুল গাড়ি ব্যবহার করবেন না। এছাড়া ভ্রমণ ব্যয় কমাতে টেলিকনফারেন্সিংয়ে উৎসাহিত করা হবে।

শাহবাজ শরীফ বলেন, ফেডারেল সরকারের বিষয়ে কোনো নতুন বিভাগ তৈরি করা হবে না। আগামী ২ বছর নতুন কোনো প্রশাসনিক ইউনিট, বিভাগ বা সাব-ডিভিশন তৈরি করা হবে না। একটি সিঙ্গেল ট্রেজারি অ্যাকাউন্ট করা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অর্থ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কাজ শুরু করেছে।

গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংরক্ষণে গ্রীষ্মকালে সকাল সাড়ে ৭টায় অফিস খোলার পরামর্শ গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারি কর্মচারীদের একাধিক প্লট বরাদ্দ দেওয়া হবে না বলেও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। খাবারের ক্ষেত্রে সরকারি ইভেন্টগুলোতে কেবল একটি খাবারের অনুমতি দেওয়া হবে। ইসলামাবাদের সব মন্ত্রণালয়, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ও ফেডারেল ক্যাবিনেটে একটি মাত্র খাবার থাকবে। যদি চায়ের সময় হয়, তখন কেবল চা এবং বিস্কুট সরবরাহ করা হবে। তবে বিদেশি অতিথি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না। 

শাহবাজ শরীফ বলেন, “এই উদ্যোগগুলো অবিলম্বে বাস্তবায়ন করা হবে এবং নতুন অর্থবছরের বাজেটের সময় ‘অতিরিক্ত ব্যবস্থা' নেওয়া হবে। ফেডারেল ক্যাবিনেট এবং আমি পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতি, ৪টি প্রদেশের প্রধান বিচারপতি ও আদালত এবং মুখ্যমন্ত্রীদের তাদের প্রতিষ্ঠান ও সরকারে একই ধরনের ব্যবস্থা বাস্তবায়নের অনুরোধ করছি।”

এর আগে, গত সোমবার ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি পরিষদ আইএমএফ-নির্দেশিত অর্থ (সম্পূরক) বিল-২০২৩ পাস করেছে। যেখানে অতিরিক্ত ১৭০ বিলিয়ন টাকা কর আরোপের কথা বলা হয়েছে।

ডন বলছে, পাকিস্তান এই সপ্তাহে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে একটি কর্মী পর্যায়ের চুক্তির দিকে নজর রাখছে। এটি অন্যান্য দ্বিপাক্ষিক এবং বহুপাক্ষিক ঋণদাতাদের কাছ থেকে বহুপ্রতীক্ষিত ঋণের পথ প্রশস্ত করবে। পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ প্রায় ৩ বিলিয়ন ডলারে নেমে এসেছে এবং দেশটি ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক সংকটের সঙ্গে লড়াই করছে। ফলে, পাকিস্তানের তহবিল প্রয়োজন। কারণ, বর্তমান রিজার্ভ ৩ সপ্তাহের নিয়ন্ত্রিত আমদানি-রপ্তানির জন্য যথেষ্ট নয়।

About

Popular Links