Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিলুপ্ত ঘোষণার ৭০ বছর পর ভারতে চিতা শাবকের জন্ম

৭০ বছর পর ভারতের মাটিতে চিতা শাবক জন্মের খবরকে স্বাগত জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এক টুইটার পোস্টে তিনি একে ‘বিস্ময়কর খবর’ হিসেবে অভিহিত করেন

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২৩, ১০:৩০ এএম

ভারতে চিতাকে বিলুপ্ত প্রাণী ঘোষণার ৭০ বছর পর চারটি চিতা শাবকের জন্ম হয়েছে।১৯৫২ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে চিতাকে বিলুপ্ত প্রাণী হিসেবে ঘোষণা করে ভারত। 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, ভারতে চিতার অস্তিত্ব ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছিল অনেক দিন ধরেই। এই লক্ষ্যে গত বছর নামিবিয়া থেকে আটটি চিতা নিয়ে আসা হয়। আবার গত মাসে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আনা হয় আরও ১২টি চিতা।

দেশটির কুনো ন্যাশনাল পার্কের বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্যে গত সেপ্টেম্বরে নামিবিয়া থেকে আনা একটি মাদী চিতা চারটি শাবকের জন্ম দেয়। 

ভারতের পরিবেশমন্ত্রী ভূপেন্দ্র যাদব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এ ঘটনাকে “গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত” বলে অভিহিত করেছেন।

তিনি বলেন, “ভারতের মাটিতে আবার চিতাদের ফিরিয়ে আনার জন্য প্রজেক্ট চিতার টিমকে অভিনন্দন জানাই। তাদের নিরলস প্রচেষ্টার জন্য এবং অতীতে করা পরিবেশগত ভুলের সংশোধনের জন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা।”

৭০ বছর পর ভারতের মাটিতে চিতা শাবক জন্মের খবরকে স্বাগত জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এক টুইটার পোস্টে তিনি একে “বিস্ময়কর খবর” হিসেবে অভিহিত করেন।

চিতা শাবকগুলো পাঁচ দিন আগে জন্মেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে কর্মকর্তারা তাদের প্রকাশ্যে আনেন গতকাল বুধবার। পার্কের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মা চিতা “সিয়ায়া” ও শাবকগুলো সুস্থ আছে।

নামিবিয়া থেকে আনা আটটি চিতার মধ্য একটি মারা যাওয়ার মাত্র দুই দিন পরই নতুন শাবক জন্ম নেওয়ার ঘোষণা আসে। কিডনি জটিলতার কারণে ওই চিতা মারা যায় বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।

বিশ্বের স্থলভাগের দ্রুততম প্রাণী চিতা। ১৯৫২ সালে ভারতে এই প্রাণীকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। বর্তমানে বিশ্বের ৭ হাজার চিতার অধিকাংশই আফ্রিকায় পাওয়া যায়। বিশেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া ও বতসোয়ানায়। আর এশীয় চিতা বর্তমানে গুরুতরভাবে বিপন্ন। কেবল ইরানে পাওয়া যায় এই চিতা। সেই সংখ্যাও খুব বেশি নয়। ইরানে মাত্র ৫০টি এশীয় চিতা রয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

About

Popular Links