Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পাকিস্তানে নিখোঁজ দুই সাংবাদিকের সন্ধান চায় সিপিজে

১৪ দিনের ব্যবধানে দুই সাংবাদিককে তুলে নেওয়া হলেও তাদের সম্পর্কে কোনো তথ্য জানায়নি কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ২৬ মে ২০২৩, ০৫:২৫ পিএম

পাকিস্তানি সাংবাদিক সামি আব্রাহাম ও ইমরান রিয়াজের অবস্থান ও বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে তথ্য প্রকাশের দেশটির প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। 

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ আহ্বান জানায় সাংবাদিকদের অধিকার রক্ষায় সোচ্চার বৈশ্বিক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে)। 

সংগঠনটি রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে সংবাদমাধ্যমকে ভয় দেখানো বন্ধ করারও দাবি জানিয়েছে।

বুধবার (২৪ মে) রাত ৯টার দিকে ইউনিফর্ম পরিহিত ৮-১০ জনের একটি দল সাংবাদিক আব্রাহামকে তুলে নিয়ে যায়।

এরমধ্যে পাকিস্তানের মূলধারার সংবাদমাধ্যম বিওএল নিউজের প্রধান ও সঞ্চালক সামি আব্রাহাম নিজের কার্যালয় থেকে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন।

আব্রাহামের আইনজীবী রাজা আমির আব্বাস সিপিজেকে জানান, ২৫ মে সন্ধ্যা পর্যন্ত আব্রাহামের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এছাড়া গত ১১ মে পাঞ্জাবের শিয়ালকোট বিমানবন্দরে গ্রেপ্তারের পর থেকে বৃহস্পতিবার (২৫ মে) পর্যন্ত সন্ধান মেলেনি আরেক সাংবাদিক ইমরান রিয়াজের।

সিপিজেকে তার আইনজীবী আজহার সিদ্দিক জানান, ১১ মে তাকে তুলে নেওয়া হয়। এরপর এ পর্যন্ত চার বার লাহোর হাইকোর্টে তার বিষয়ে পুলিশের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে। কিন্তু পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করতে পারেনি। জ্যেষ্ঠ এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ইমরান তাদের বা কোনো গোয়েন্দা সংস্থার হেফাজতে নেই।

সিপিজের এশিয়ার সমন্বয়ক বেহ লিহ ই বলেন, পাকিস্তানে গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে যেরকম স্টিম রোলার চালানো হচ্ছে। তারমধ্যে এই দুই সাংবাদিকের নিখোঁজের ঘটনা ভীষণ উদ্বেগের।

তিনি বলেন, কর্তৃপক্ষকে আইনের শাসনকে সম্মান করে দুই সাংবাদিককে আদালতে হাজির করতে হবে অথবা দ্রুত তাদের মুক্তি দিতে হবে। 

গত ৯ মে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের গ্রেপ্তারের পর এই সাংবাদিকদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও অনেক সাংবাদিক হামলার শিকার হয়েছেন। অনেকেই নজরদারির শিকার বলেও অভিযোগ করেন। 

আব্রাহাম ও ইমরান রিয়াজ সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইসরান খানের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্ক না থাকলেও তাদের পরিচালনা করা টকশোতে পিটিআইয়ের সমর্থকদের আমন্ত্রণ জানিয়ে থাকেন বলে সরকারের পক্ষ থেকে তাদের ওপর নজর রাখা হচ্ছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাকিস্তানের দুই সাংবাদিক বলেন, রাজনৈতিক বিরোধে সত্য কথা তুলে থরায় এই দুই সাংবাদিক সরকারের লক্ষবস্তুতে পরিণত হয়েছেন।

নিখোঁজের আগে আব্রাহাম নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও প্রতিবেদনের সিরিজ প্রকাশ করেছিলেন। যেখানে তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সমর্থন ও সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ধরেন।

আব্রাহামের ভাইয়ের করা অভিযোগ থেকে জানা যায়, তিনি বাড়ি ফেরার সময় চারটি গাড়ি তার পথরোধ করে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে নেয়। এসময় তার মোবাইল ফোন, গাড়ির চাবি ও চালকের ফোন নিলেও চালককে তারা আটক করেনি।

একটি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে পাকিস্তানি সংবাদপত্র ডন জানিয়েছে, “পুলিশ আব্রাহামকে গ্রেপ্তার করেছে।”

যদিও ইসলামাবাদ পুলিশ টুইটারে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে দাবি করেছে, আব্রাহাম তাদের কাছে নেই। এই সাংবাদিককে খুঁজতে তারা পরিবারকে সহায়তা করবে।

বৃহস্পতিবার আব্রাহামের ভাই সিপিজেকে জানান, আব্রাহামকে আদালতে উপস্থিত করতে তিনি ইসলামাবাদ হাইকোর্টে একটি পিটিশন দাখিল করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে সিপিজে ইসলামাবাদের পুলিশ ইন্সপেক্টর-জেনারেল আকবর নাসির খান, পাঞ্জাব প্রাদেশিক পুলিশের ইন্সপেক্টর-জেনারেল উসমান আনোয়ার ও তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেবের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। তবে কেউই বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

উসমান আনোয়ার একটি ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে বলেন, “সাংবাদিক ইমরান রিয়াজ খানকে খুঁজতে সংস্থাগুলো কাজ করছে।”

তিনি বলেন, “কেউ যদি নিজে থেকে লুকিয়ে থাকে, তাহলে সেই ব্যক্তিকে খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন।”

About

Popular Links