Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পোল্যান্ড সীমান্ত সংকট: শরণার্থীদের সঙ্গে সীমান্তক্ষীদের ব্যাপক সংঘর্ষ

পোলিশ সীমান্ত এজেন্সি বলছে, এ মাসে এ পর্যন্ত বেলারুশ থেকে পোল্যান্ডে সীমানা অতিক্রম করার জন্য শরণার্থীরা ৫ হাজারেরও বেশি বার চেষ্টা করেছে। যেখানে গত বছর মাত্র ৮৮ বার চেষ্টা করেছিল।

আপডেট : ১৭ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৫ পিএম

পোল্যান্ড-বেলারুশ সীমান্ত এলাকায় আটকে থাকা শরণার্থীদের সঙ্গে পোলিশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শরণার্থীদের প্রবেশ ঠেকাতে সীমান্তরক্ষী বাহিনী কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান ব্যবহার করেছে।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর)  স্থানীয় সময় সকালে এ  সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি ও কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কয়েক সপ্তাহ ধরে মধ্যপ্রাচ্যের হাজার হাজার শরণার্থী ইউরোপীয় ইউনিয়নে যাওয়ার জন্য বেলারুশ সীমান্তে জড়ো হচ্ছে। তারা কুজনিকা সীমান্ত পার হওয়ার চেষ্টা করে এবং পোলিশ নিরাপত্তারক্ষীদের ওপর পাথর নিক্ষেপ করে। ইউরোপীয় ইউনিয়নকে অস্থিতিশীল করতে শরণার্থীদেরকে সীমান্তের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে বলে বেলারুশের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে। এছাড়া, অনৈতিকভাবে শরণার্থীদের সহযোগিতারও অভিযোগ রয়েছে দেশটির বাহিনীর বিরুদ্ধে। শরণার্থী ইস্যুতে গত সপ্তাহের প্রথম থেকে পোল্যান্ড-বেলারুশ সীমান্ত উত্তাল হয়ে ওঠে। তবে বেলারুশ এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

পোলিশ মন্ত্রণালয়ের দাবি, শরণার্থীরা পোল্যান্ডের সেনাদের ওপর পাথর দিয়ে হামলা করে এবং জোর করে পোল্যান্ডের ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করে। শরণার্থীদের আগ্রাসন রুখতে আমাদের বাহিনী টিয়ার গ্যাস ব্যবহার করেছে।

পোলিশ সীমান্ত এজেন্সি বলছে, চলতি মাসে এ পর্যন্ত বেলারুশ থেকে পোল্যান্ডে সীমানা অতিক্রম করার জন্য শরণার্থীরা ৫ হাজারেরও বেশি বার চেষ্টা করেছে। যেখানে গত বছর মাত্র ৮৮ বার চেষ্টা করেছিল।

গত সপ্তাহ থেকেই তীব্র শীতের মধ্যে শিশুসহ অভিবাসীরা বেলারুশের অভ্যন্তরে অস্থায়ী শিবিরে বসবাস করছে। সম্প্রতি উত্তর-পশ্চিম বেলারুশের গ্রডনোর দক্ষিণে কুজনিকাতে বর্ডারে একত্রিত হয় হাজার হাজার শরণার্থী। সৈন্যরা তাদের বাধা দিলে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। প্রবল ঠাণ্ডার মধ্যে কোনোরকমে অস্থায়ী আশ্রয় তৈরি করে সেখানে অবস্থান করছেন তারা। সীমান্তের ওই এলাকায় নেই খাবার, এমনকি প্রয়োজনীয় পানিরও সংকট রয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে পোল্যান্ডের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, “শরণার্থীরা আমাদের সৈন্য ও অফিসারদের ওপর পাথর নিক্ষেপ করেছে এবং কাঁটাতারের বেড়া ভেঙে পোল্যান্ডে ঢোকার চেষ্টা করছে। আমাদের সীমান্তরক্ষী বাহিনী তাদের আগ্রাসন দমন করতে টিয়ার গ্যাস ব্যবহার করেছে।”

পোলিশ পুলিশ জানিয়েছে, সীমান্তের ওপারে নিক্ষিপ্ত একটি বস্তুর আঘাতে একজন অফিসার গুরুতর আহত হয়েছেন এবং একজন মাথায় আঘাত পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এদিকে সীমান্তে আটকে থাকা শরণার্থীদের ওপর পোল্যান্ডের নিরাপত্তারক্ষীদের টিয়ারগ্যাস ও জলকামান ব্যবহারের নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া। 

বেলারুশের ঘনিষ্ঠ মিত্র এই দেশটি শরণার্থীদের ওপর শক্তিপ্রয়োগের নিন্দা জানিয়ে বলেছে, এটি কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। মূলত বেলারুশ সীমান্ত দিয়ে পোল্যান্ডে ঢোকার চেষ্টা করা শরণার্থীদের অধিকাংশই ইরাকের নাগরিক। তাদের মধ্যে একটি বড় অংশ আবার জাতিগতভাবে কুর্দি। ইরাকি ছাড়াও সিরিয়া ও আফগানিস্তানের মানুষও সেখানে আছেন।

বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো বলেন, “আমরা বিষয়টিকে উত্তপ্ত সংঘর্ষের দিকে নিয়ে যেতে দিতে পারি না।”

রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বেল্টা জানিয়েছে,  আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো ও জার্মানির অ্যাঞ্জেলা মার্কেল পরিস্থিতি সমাধানের বিষয়ে একমত হয়েছেন।

About

Popular Links