Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আগ্নেয়গিরির আগুনে তৈরি হলো পিৎজা

ওই পর্যটক লিখেন, সক্রিয় আগ্নেয়গিরির তাপে তৈরি পিৎজা খাওয়ার জন্য গুয়াতেমালা ভ্রমণ

আপডেট : ১৫ জুলাই ২০২৩, ০৭:৪১ পিএম

গুয়াতেমালার প্যাকায়া আগ্নেয়গিরির তাপে পিৎজা বানিয়ে সাড়া ফেলেছেন এক নারী পর্যটক।

সম্প্রতি ওই নারী এ নিয়ে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন। ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করার পর আলেকসান্দ্রার ভিডিওটি ১২ লাখ বারের বেশি দেখা হয়েছে। শেয়ার হয়েছে ৬৯ হাজারের মতো। লাইক পড়েছে ৭০ হাজারের বেশি।

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি গুয়াতেমালা ভ্রমণে গিয়ে ব্যতিক্রমী কিছু করার কথা মাথায় চাপে আলেকসান্দ্রা ব্লোজেত্ত নামের এক নারী পর্যটকের। অভিনব এক পিৎজা খাবেন বলে স্থির করেন আলেকসান্দ্রা। ওভেনে নয়, সক্রিয় আগ্নেয়গিরির তাপে বানানো পিৎজা খেলেন তিনি।

আলেকসান্দ্রার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি একটি ট্রেতে প্রচুর সবজিসহ একটি পিৎজা নিয়ে আগ্নেয়গিরির কাছে উত্তপ্ত মাটিতে রাখছেন। কিছুক্ষণ পরই পিৎজাটি আলেকসান্দ্রাকে খেতে দেওয়া হয়। পিৎজাটি তাঁকে উচ্ছ্বাসের সঙ্গেই খেতে দেখা যায়।

ভিডিওটি পোস্ট করে ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, “সক্রিয় আগ্নেয়গিরির তাপে তৈরি পিৎজা খাওয়ার জন্য গুয়াতেমালা ভ্রমণ। অবশ্য শুধু এ জন্যই আমরা হয়তো এই ভ্রমণে যাইনি, তবে এটি বাড়তি আনন্দ যোগ করেছে।”

ইনস্টাগ্রামে নিজের অনুসারীদের আলেকসান্দ্রা জানান, প্যাকায়া আগ্নেয়গিরিতে এ ধরনের পিৎজা চাইলেই খাওয়া যায়। তিনি বলেন, “এই ন্যাশনাল পার্কে প্রবেশ করতে হলে আপনার অবশ্যই একজন গাইড লাগবে। পিৎজা প্যাকায়ার জন্য আমরা আগেই বুকিং দিয়ে রেখেছিলাম।”

এদিকে আলেকসান্দ্রার পোস্টটিতে পড়েছে নানা ধরনের মন্তব্য। ব্যবহারকারীদের একজন লিখেছেন, “অসাধারণ অভিজ্ঞতা'। আরেকজন লিখেছেন, ‘বিস্ময়কর! এমনটা জানা ছিল না। আমাদের ভ্রমণ তালিকায়ও রাখতে হবে।”

About

Popular Links