Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জাতিসংঘ: সংঘাতে মিয়ানমারে বাস্তুচ্যুত প্রায় তিন লাখ মানুষ

২০২১ সালের পর এই সংঘাতকে সবচেয়ে বড় নাগরিক বিপর্যয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে

আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২৩, ০৬:৫৮ পিএম

জান্তা ও জাতিগত গোষ্ঠীর লড়াইয়ে মিয়ানমারে প্রায় তিন লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

২০২১ সালের পর এই ঘটনাকে সবচেয়ে বড় নাগরিক বিপর্যয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

বুধবার (২২ নভেম্বর) জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের ডেপুটি মুখপাত্র ফারহান হক এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, “আমাদের মানবিক সহকর্মীরা আমাদের জানিয়েছেন, জাতিগত সশস্ত্র সংগঠন এবং মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে তীব্র লড়াই অব্যাহত রয়েছে। সংঘাত ঘনবসতিপূর্ণ শহুরে কেন্দ্র ও আরও এলাকায় বিস্তৃত হয়েছে।

তিনি বলেন, “২০২১ সালে সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে এটি সবচেয়ে বড় ঘটনা। যেখানে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা শান, সাগাইং, কায়া, রাখাইন এবং দক্ষিণ চিন রাজ্যে।

তিনি আরও বলেন, “২৬ অক্টোবর যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ২৮৬,০০০ এরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

অক্টোবরের শেষের দিকে চীনের সীমান্তের কাছে শান রাজ্যের উত্তরে যুদ্ধ শুরু হয়। যেখানে তিনটি জাতিগত সংখ্যালঘু গোষ্ঠী সামরিক শক্তির বিরুদ্ধে টানা হামলা চালাচ্ছে।

গত ২৭ অক্টোবর চীনের সীমান্তবর্তী উত্তর শান রাজ্যে সামরিক পোস্টে সমন্বিত আক্রমণ শুরু করে জাতিগত সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর একটি জোট। “১০২৭” নামে ওই অপারেশনে বেশ কয়েকটি শহর দখল করে বিদ্রোহীরা। 

মিয়ানমারের ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স আর্মি (এমএনডিএএ), তায়াং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি (টিএনএলএ) ও আরাকান আর্মির (এএ) গ্রুপ “থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স” যৌথ এ অভিযান পরিচালনা করে। তাদের দাবি, বেসামরিক নাগরিকদের জীবন রক্ষা, নাগরিকদের আত্মরক্ষার অধিকার নিশ্চিত ও আঞ্চলিক নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখার জন্য এই অভিযান চালানো হয়েছে। অভিযানে আর্টিলারি ও বিমান হামলা চালায় বিদ্রোহীরা। 

যুদ্ধটি ইতোমধ্যে পশ্চিম রাখাইন ও চিন রাজ্যসহ বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তবর্তী অন্যান্য অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ফারহান হক বলেন, “রাখাইনে নিরাপত্তা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। পাকতাও টাউনশিপে এ মাসের মাঝামাঝিতে ২০,০০০ নাগরিক পালিয়েছেন।”

তিনি বলেন, “শহরে প্রবেশের পয়েন্টগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এগুলো দিয়ে যাতায়াত বন্ধ রয়েছে। এতে শত শত নাগরিক আটকা পড়েছে।”

এছাড়াও প্রায় ২৬,০০০ রোহিঙ্গা পাউকতাওয়ের পাঁচটি শরণার্থী শিবিরে পৌঁছানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন।

মিয়ানমারে এখন দুই মিলিয়নেরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হওয়ায় হক মানবিক সহায়তার জন্য জরুরি তহবিলের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা।

About

Popular Links