Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পাকিস্তানে নির্বাচনে এই প্রথম প্রার্থী হলেন কোনো হিন্দু নারী

২০২৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠত হবে

আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:৩৫ পিএম

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে দেশটির নির্বাচন কমিশন (ইসিপি)। ২০২৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠত হবে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী দেশটিতে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে শুরু করেছেন প্রার্থীরা। আর এসব প্রার্থীদের মধ্যে আলাদাভাবে আলোচনায় এসেছেন একজন নারী। তার নাম সাবিরা পারকাশ।

পাকিস্তানের গত ৭৬ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো কোনো হিন্দু নারী হিসেবে জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সাবিরা পারকাশ।

এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম ডন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাচনে পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য গত ২৩ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সাবিরা পারকাশ। দেশটির উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনখোয়ার বুনের জেলার ২৫ নম্বর আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তিনি।

সাবিরা পারকাশ ২০২২ সালে অ্যাবোটাবাদ ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন। সাবিরা পারকাশের বাবা ওম পারকাশও পেশায় একজন অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎক এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টি খাইবার পাখতুনখোয়া শাখার সংগঠক। সাবিরা নিজে পিপিপির বুনের জেলা শাখার নারী বিভাগের সাধারণ সম্পাদক।

বুনের জেলার স্থানীয় রাজনীতিবিদ এবং কওমি ওয়াতান পার্টির নেতা সেলিম খান পাকিস্তানের ডনকে বলেন, “কেবল প্রথম হিন্দু নারী প্রার্থী নয়, নিজ আসন বুনের জেলার প্রথম নারী প্রার্থীও সাবিরা। এর আগে কোনো নির্বাচনে নারী প্রার্থী দেখেনি বুনের জেলার বাসিন্দারা।”

ডনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সাবিরা জানান, তার জীবনে তার বাবা ওম পারকাশের প্রভাব ব্যাপক। বাবার উৎসাহ- অনুপ্রেরণাতেই চিকিৎসাশাস্ত্রে ডিগ্রি নেওয়া ও রাজনীতিতে আগমন ঘটেছে বলে জানান তিনি। নির্বাচিত হলে বুনের জেলার স্বাস্থ্যসেবা খাতকে আরও উন্নত করতে মনযোগী হবেন বলেও জানান সাবিরা।

About

Popular Links