Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সোমালিয়ায় জাতিসংঘের হেলিকপ্টারের জরুরি অবতরণ, আল-শাবাবের হাতে মৃত ১

আল-শাবাব ২০০৬ থেকে সোমালিয়া সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে

আপডেট : ১১ জানুয়ারি ২০২৪, ০১:৩২ পিএম

যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে সোমালিয়ায় নেমেছিল জাতিসংঘের হেলিকপ্টার। আরোহীদের মধ্যে একজনকে হত্য়া ও ছয়জনকে অপহরণ করেছে আল-শাবাব জঙ্গিরা।

এক সোমালি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, যে জায়গায় হেলিকপ্টারটি নেমেছিল, তা আল-শাবাবের নিয়ন্ত্রণে।

বার্তা সংস্থা এএফপি এ বিষয়ে জতিসংঘের একটি অভ্যন্তরীণ মেমোর বরাতে জানিয়েছে, যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে ধুসামারেবের দক্ষিণপূর্বে ৭০ কিলোমিটার দূরে হেলিকপ্টারটি জরুরি অবতরণ করতে বাধ্য হয়।

রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আবদি আদেন গাবুদ জানিয়েছেন, হেলিকপ্টারের ইঞ্জিন ঠিকভাবে কাজ করছিল না। তাই সেটি শিনধিরি গ্রামে নামতে বাধ্য হয়।

হেলিকপ্টারে মোট নয়জন ছিলেন। তার মধ্যে আটজন বিদেশি। দুইজন পালিয়েছেন। তৃতীয় ব্যক্তি পালানোর সময় আল-শাবাব জঙ্গিরা গুলি চালালে তিনি মারা যান।

জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাকিদের অপহরণের ঘটনা এখনো যাচাই করে দেখা সম্ভব হয়নি। মেমোতে বলা হয়েছে, হেলিকপ্টারে যারা ছিলেন, তারা কেউ জাতিসংঘের কর্মী নন। তারা কন্ট্রাক্টর। ওই অঞ্চল থেকে জাতিসংঘের যাবতীয় উড়ান বন্ধ রাখা হয়েছে।

নিউইয়র্কে জাতিসংঘের মুখপাত্র জানিয়েছেন, অপহৃতদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। কিন্তু হেলিকপ্টারে যারা ছিলেন, তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে এখনই আর কিছু জানানো হচ্ছে না। তাদের উদ্ধারের জন্য সব ধরনের চেষ্টা চলছে।

এ ঘটনায় এখনো আল-শাবাব কোনো দায় নেননি। অপহৃতরা কোন দেশের নাগরিক তাও জানা যায়নি।

আল-শাবাব

আল-শাবাব ২০০৬ থেকে সোমালিয়া সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে। তারা আল উগ্র ইসলামপন্থী জঙ্গি দল আল-কায়েদার সঙ্গে যুক্ত। তাদের উদ্দেশ্য, শরিয়া অনুসারে চলবে এমন একটি ইসলামিক রাষ্ট্র গঠন করা।

২০১০-এর মাঝামাঝি সময় থেকে সরকার এই সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে কিছুটা সাফল্য পেয়েছে। তবে দক্ষিণ ও মধ্য সোমালিয়ায় কিছু অঞ্চল তারা এখনো দখল করে আছে।

About

Popular Links