Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এবার মসজিদের নিচে মন্দির দাবি ভারতীয় আইনজীবীর

  • হিন্দুদের দাবি, মন্দিরের পাথর দিয়ে মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে, এছাড়া মন্দিরের পিলার অদলবদল করে মসজিদে ব্যবহার করা হয়েছে
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০২৪, ০৯:৪৮ পিএম

ভারতের বারাণসীতে কাশী বিশ্বনাথ মন্দির সংলগ্ন জ্ঞানবাপী মসজিদের নিচে মন্দিরের দাবি করেছে হিন্দুরা। মালিকানা দাবি করা হিন্দুদের পক্ষে মামলা লড়তে চাওয়া এক আইনজীবীর মাধ্যমেই বিষয়টি সামনে এসেছে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি।

মসজিদটি ১৬৬৯ সালে সম্রাট শাহজাহানের পুত্র ষষ্ঠ মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেব নির্মাণ করলেও নির্মাণের সাড়ে ৩০০ বছর পর নতুন করে এর মালিকানা দাবি করেছে তারা।

জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে পাঁচজন নারীর করা মামলায় আইনজীবী বিষ্ণু জৈন দাবি করেছেন, “দেশটির পুরাতত্ত্ব বিভাগের রিপোর্ট তাকে দেওয়া হয়েছে। সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, মসজিদের তলায় মন্দির আছে। এএসআই আদালতের নির্দেশে যে সমীক্ষার কাজ করেছিল, সেখানে তারা ৩৪টি লিপি পেয়েছে। দেবনাগরী ও অন্য ভাষায় লেখা এই লিপিতে জনার্দন, রুদ্র ও উমেশ্বর দেবতাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।”

আইনজীবীর দাবি, “এএসআই রিপোর্টে বলা হয়েছে, মন্দিরে ওই লিপি সম্বলিত পাথর ছিল। পরে মন্দিরের পাথরগুলি মসজিদ তৈরির কাজে লাগানো হয়। মন্দিরের পিলার একটু অদলবদল করে মসজিদে ব্যবহার করা হয়েছে।”

এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বারাণসীর জেলা বিচারকের কাছে এই রিপোর্ট জমা দেয় পুরাতত্ত্ব বিভাগ। কিন্তু তিনি এই রিপোর্ট প্রকাশ করেননি। তিনি জানিয়েছিলেন, রিপোর্ট খুবই সংবেদনশীল। তাই এই রিপোর্ট নিয়ে কোনো ভুল তথ্য প্রচারিত হোক, তা তিনি চান না।

কিন্তু মামলাকারীদের আইনজীবী বিষ্ণু জৈন দাবি করেছেন, তিনি এই রিপোর্ট হাতে পেয়েছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে রিপোর্টের কিছু অংশ তিনি পড়েও শুনিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে সাংবাদিক সম্মেলনে বিষ্ণু জৈন দাবি করেন, এএসআই তাদের রিপোর্টে বলেছে, “তরা মন্দিরের কাঠামো ও একটি কুয়া পেয়েছে। প্রধান প্রবেশদ্বার ও সেন্ট্রাল চেম্বারে এই কাঠামো আছে বলে এএসআই রিপোর্টে উল্লেখ আছে। তারা সব থাম (পিলার) পরীক্ষা করেছে। সেগুলো মন্দিরের ছিল। আর যে সব লিপি উদ্ধার করা হয়েছে, সেখানে “মহা মুক্তি মণ্ডপ” কথাটি আছে।”

এ ব্যাপারে অযোধ্যায় রামমন্দির স্থাপনের মতোই বিজেপি বলছে, তারা আন্দোলন নয়, আইনের সাহায্যেই উদ্দেশ্য হাসিল করবে। এএসআইয়ের জরিপের দাবি প্রকাশ্যে আসায় সেই লক্ষ্য পূরণে বিজেপি অনেকটাই এগিয়ে গেছে বলে ধারণা করছেন দেশটির অনেকেই।

প্রসঙ্গত, ভারতের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ (এএসআই) গত ৪ আগস্ট থেকে বারাণসীর জ্ঞানবাপী মসজিদে সমীক্ষার কাজ করে আসছিল। ওজুখানা বাদে সব জায়গায় তারা সমীক্ষার কাজ শেষ করেছে। তবে সুপ্রিম কোর্টের স্থগিতাদেশের ফলে তারা ওজুখানার সমীক্ষা করতে পারেনি।

About

Popular Links