Sunday, June 16, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আফগানিস্তানে তুষারপাতের কারণে ভূমিধস, নিহত ২৫

বরফের কারণে উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হচ্ছে

আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০০ এএম

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলের নুরিস্তান প্রদেশে ভারী তুষারপাতের কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে ২৫ জন নিহত ও আটজন আহত হয়েছে।

রবিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতে নুরিস্তানের তাতিন উপত্যকার নক্রে গ্রামে ঘটনা ঘটে।

দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জনান সায়েক সোমবার জানান, ভূমিধসে প্রায় ২৫ জন নিহত ও আটজন আহত হয়েছে।

মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও জানান তিনি।

পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী নুরিস্তান প্রদেশের বেশির ভাগই পাহাড়ি বন। হিন্দুকুশ পর্বতশ্রেণীর দক্ষিণ প্রান্তের কাছে অবস্থিত এই প্রদেশ। এখানে প্রায়ই ভূমিধস, তুষারধস ও অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ ঘটে থাকে।

প্রাদেশিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বরফের কারণে উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হয়েছে।

প্রদেশের গণপূর্ত প্রধান মোহাম্মদ নবী আদেল বলেন, “মেঘ ও বৃষ্টির কারণে উদ্ধারকারী হেলিকপ্টার নুরিস্তানে অবতরণ করতে পারেনি। তুষারপাতে প্রদেশটির প্রধান সড়কগুলোর একটি সম্পূর্ণ অবরুদ্ধ হয়ে গেছে। এতে কঠিন হয়ে পড়েছে উদ্ধার অভিযান।”

প্রাদেশিক তথ্য ও সংস্কৃতি কর্মকর্তা জামিউল্লাহ হাশিমি বলেন, “এখনো তুষারপাত অব্যাহত। উদ্ধার তৎপরতা চলছে। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। রবিবার রাতভর নুরিস্তানের তাতিন উপত্যকার নাক্রে গ্রামের মধ্য দিয়ে বয়ে গেছে তুষারধস। এতে প্রায় ২০টি বাড়ি ধ্বংস বা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।”

এ বছর আফগানিস্তানের বেশির ভাগ অংশেই তুষারের আগমন দেরিতে হয়েছে। এসব এলাকায় সাধারণত বছরের এ রকম সময়ে তীব্র ঠান্ডা আবহাওয়া বিরাজ করে।

কৃষির ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল আফগানিস্তানে এ বছর বৃষ্টি হয়েছে অনেক কম। এতে দেরিতে শস্য রোপণে বাধ্য হন কৃষকেরা।

কয়েক দশকের যুদ্ধে বিপর্যস্ত ও প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ দেশ আফগানিস্তান। জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সম্পর্কিত প্রাকৃতিক দুর্যোগের জন্য বেশ ঝুঁকিপূর্ণ বিশ্বের অন্যতম দরিদ্র এই দেশ।

বিশ্বের দরিদ্রতম দেশের একটি আফগানিস্তান। কয়েক দশক ধরে যুদ্ধের কারণে জর্জরিত দেশটি প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে চরম বিরূপ আবহাওয়ার শিকার।

মার্কিন নেতৃত্বাধীন দখলদারিত্বের পর দক্ষিণ এশীয় দেশটি একসময় মানবিক সহায়তায় ভরপুর ছিল। তবে ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে তালেবান ক্ষমতায় ফিরে আসার পর থেকে আফগানিস্তানে অর্থায়ন কমে গেছে।

২০২১ সালে প্রদেশটিতে হড়কা বানের এক ঘটনায় ৬০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। এর আগে ২০১৭ সালে তুষারধসের আরেক ঘটনায় ৫০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

About

Popular Links