Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে বামদের জয়জয়কার

এ ফলাফল বিজেপির সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিরুদ্ধে জনরোষের প্রতিফলন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা

আপডেট : ২৫ মার্চ ২০২৪, ১২:৪৪ এএম

ভারতের সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের (জেএনইউ) ছাত্র সংসদ নির্বাচনে দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপির ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ বা এবিভিপিকে হারিয়ে চারটি শীর্ষ পদে চার বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের জোট প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন।

পুরো ভারতে বামপন্থীরা যখন প্রায় নিশ্চিহ্ন, তখন রাজধানী দিল্লির বুকে লাল ঝান্ডার জয় বামপন্থীদের উৎসাহ জোগাচ্ছে৷

অনেকের ধারণা ছিল, এবারের ভোটে এবিভিপি এগিয়ে থাকতে পারে। তবে বাম দূর্গ খ্যাত ক্যাম্পাসে জয় পেয়েছে লাল ঝান্ডার প্রার্থীরাই।

কোভিড-১৯ এর কারণে চার বছর বিরতির পর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন (এআইএসএ), ডেমোক্র্যাটিক স্টুডেন্টস ফেডারেশন (ডিএসএফ), স্টুডেন্টস ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া (এসএফআই) এবং অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস ফেডারেশনের (এআইএসএফ) গঠিত চার সংগঠনের ইউনাইটেড বাম জোটের বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আরএসএস-অধিভুক্ত অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি)।

প্রেসিডেন্ট পদে এবিভিপির প্রার্থী উমেশ চন্দ্র ২,১১৮ ভোট পান। আর বামদের প্রার্থী ধনঞ্জয় পান ৩,১০০ ভোট।

কে কত ভোট পেলেন

সভাপতি পদে ধনঞ্জয় ৩,১০০ ভোট এবিভিপির উমেশ চন্দ্র আজমীরা ২,১১৮ ভোট। 

সহসভাপতি পদে বাম প্রার্থী অভিজিৎ ঘোষ পেয়েছেন ২,৭৬২ ভোট ও এবিভিপির প্রার্থী দীপিকা শর্মা ১,৮৪৮ ভোট।

সাধারণ সম্পাদক পদে বাম প্রার্থী প্রিয়ংশী আর্য ৩,৪৪০ ভোট ও তার প্রতিদ্বন্দ্বী অর্জুন আনন্দ পেয়েছেন ২,৪১২ ভোট।

সহসাধারণ সম্পাদক পদে বাম প্রার্থী মো. সাজিদ ৩,০৩৫ ভোট ও এবিভিপির গোবিন্দ ডাঙ্গি ২,৫৯১ ভোট।

১৯৬৯ সালে জেএনইউ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বামপন্থী ছাত্র সংগঠন বিশেষ করে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির (মার্কসবাদী) সঙ্গে যুক্ত স্টুডেন্টস ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া (এসএফআই) ছাত্র রাজনীতিতে শক্তিশালী প্রভাব ফেলেছে।

সভাপতি পদে এসএফআই ২২বার ও অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন (এআইএসএ) ১১বার জয়লাভ করেছে। গত ২০ মার্চ সভাপতি পদে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়। ভোটগ্রহণ হয় ২২ মার্চ।

জেএনইউ বছরের পর বছর ধরেই জাতীয় রাজনীতিতেও বড় প্রভাব রেখে আসছে।

নির্বাচন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের হলেও সমগ্র ভারতীয় রাজনীতির চোখ থাকে এই নির্বাচনের দিকে।

ভারতীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বিজেপি দেশব্যাপী যে সাম্প্রদায়িক উন্মাদনা তৈরি করেছে, তার বিরুদ্ধে একটা বড় প্রতিবাদ এই নির্বাচনের ফলাফল।

About

Popular Links