Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পরাজয়ের ভয় জেঁকে বসেছে জেলেনস্কির মনে

মার্কিন কংগ্রেসে সামরিক সহায়তার প্যাকেজ আটকে থাকায় রাশিয়ার পক্ষে আরও অগ্রসর হওয়া সহজ হয়ে উঠছে বলে জানান ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:০৪ পিএম

যুদ্ধক্ষেত্রে গোলাবারুদ ও অস্ত্রের অভাবে ইউক্রেন পরাজয়ের মুখ দেখতে পারে বলে মনে করছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লদোমির জেলেনস্কি। 

রবিবার তিনি বলেন, মার্কিন কংগ্রেসে সামরিক সহায়তার প্যাকেজ আটকে থাকায় রাশিয়ার পক্ষে আরও অগ্রসর হওয়া সহজ হয়ে উঠছে। এক ভিডিওবার্তায় তিনি নির্দিষ্টভাবে মার্কিন কংগ্রেসের কাছে সেই বার্তা পৌঁছে দেওয়ার আর্জি জানান। 

তার মতে, যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা ছাড়া ইউক্রেনের পক্ষে টিকে থাকা সহজ হবে না।

গত দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে রাশিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ চালিয়ে যাচ্ছে ইউক্রেন। ইউক্রেনের প্রায় এক-পঞ্চমাংশ দখলে নিতে সক্ষম হলেও সাম্প্রতিককালে রুশ সেনারা বেশি জমি নিজেদের আওতায় নিতে পারেনি। কিন্তু এবার নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে চারসিভ ইয়ার নামের এলাকা রাশিয়ার হাতে চলে যেতে পারে। ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ শহর ক্রামাটর্স্ক থেকে ৩০ কিলোমিটারেরও কম দূরত্বে অবস্থিত এলাকাটি হাতছাড়া হলে ইউক্রেন কঠিন পরিস্থিতির মুখে পড়বে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে। রাশিয়া সেখানে ক্রমাগত হামলা চালিয়ে যাচ্ছে বলে ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনী জানিয়েছে।

চারসিভ ইয়ারের বাইরে দুটি ছোট শহরের উপর সরাসরি হামলা চলছে। উত্তর পূর্বে খারকিভ শহরের উপরেও রাশিয়ার হামলা বাড়ছে। আকাশপথে হামলা প্রতিরোধের জন্য যথেষ্ট এয়ার ডিফেন্স সরঞ্জামের অভাবে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে বলে দাবি জেলেনস্কির।

রাশিয়ার ভূখণ্ডের উপর ইউক্রেনের ড্রোন হামলা বেড়ে গেছে। রাশিয়া অবশ্য বেলগোরোদ ও ব্রিয়ানস্ক অঞ্চলে ১৫টি ড্রোন হামলা বানচাল করেছে বলে দাবি করেছে। বিচ্ছিন্ন হামলার মাধ্যমে ইউক্রেন কিছু সাফল্য পেলেও সার্বিকভাবে রাশিয়ার হামলার মাত্রা কমাতে সক্ষম হচ্ছে না।

মার্কিন কংগ্রেসের দিকে তাকিয়ে ইউক্রেন

ইস্টারের বিরতির পর এ সপ্তাহেই মার্কিন কংগ্রেসের অধিবেশন আবার শুরু হচ্ছে। সিনেটের অনুমোদন সত্ত্বেও নিম্নকক্ষে এখনও ইউক্রেন, ইসরায়েল ও তাইওয়ানের জন্য সামরিক প্যাকেজ এখনও পেশ করা হয়নি। এ সপ্তাহে সেক্ষেত্রে অগ্রগতিরও কোনো সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে মার্কিন অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক জটিলতার কারণে রিপাবলিকান দলের একাংশ ইউক্রেনের জন্য সহায়তার তুমুল বিরোধিতা করছে। তবে দলের বাকি অংশ এমন প্রস্তাবের পক্ষে সমর্থন করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে স্পিকার মাইক জনসন নিজের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

About

Popular Links