Friday, June 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

যুক্তরাষ্ট্র: গাজায় মানবাধিকার লঙ্ঘন করতে পারে ইসরায়েল

প্রতিবেদনটিতে কিছু অসংগতিও খুঁজে পাওয়া গেছে

আপডেট : ১১ মে ২০২৪, ০১:০৫ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের সরবরাহকৃত অস্ত্র ব্যবহারের মাধ্যমে ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরায়েল আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন লঙ্ঘন করে থাকতে পারে। এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বাইডেন প্রশাসন। শুক্রবার (১০ মে) যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের এক পর্যালোচনা প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে রয়টার্স। 

ওই খবরে বলা হয়েছে, প্রতিবেদনটি যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে জমা দেওয়া হয়েছে। ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন স্বাক্ষরিত একটি জাতীয় নিরাপত্তা স্মারক (এনএসএম–২০) অনুযায়ী পর্যালোচনাটি করা হয়। স্মারকটি বিদেশে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র সরবরাহ, ব্যবহার এবং জবাবদিহিতা সংক্রান্ত।

প্রতিবেদনে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর লিখেছে, যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি প্রতিরক্ষা সরঞ্জামের ওপর ইসরায়েলের উল্লেখজনক নির্ভরতা আছে। আর বিষয়টি মাথায় রেখে গেল ৭ অক্টোবর থেকে ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনী যেসব প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার করছে, তা নিয়ে এনএসএম–২০–এর আওতায় মূল্যায়ন করা যুক্তিসংগত। এসব ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন লঙ্ঘন হয়েছে কি না কিংবা বেসামরিক ক্ষয়ক্ষতি কমানোর বিষয়টি মাথায় রাখা হয়েছিল কি না, তা পর্যালোচনা করা যুক্তিসংগত।

প্রতিবেদনটিতে চূড়ান্ত কোনো মূল্যায়ন এখনও দেয়নি বাইডেন প্রশাসন এবং প্রতিবেদনটিতে কিছু অসংগতিও খুঁজে পাওয়া গেছে। এতে বেসামরিক মানুষদের ক্ষয়ক্ষতি হওয়া অসংখ্য তুলে ধরা হলেও বলা হয়েছে, ইসরায়েল মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে কি না, তা নিয়ে তারা নিশ্চিত করে বলতে পারছে না।

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রগুলো ব্যবহার করে গাজা কিংবা পশ্চিম তীর বা পূর্ব জেরুজালেমে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন লঙ্ঘন করা হচ্ছে কি না, তা যাচাইয়ের জন্য এনএসএম–২০–এর আওতায় পূর্ণাঙ্গ তথ্য দেয়নি ইসরায়েল। এ কারণে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রগুলো আন্তর্জাতিক আইন মেনে ব্যবহার করা হচ্ছে বলে ইসরায়েল যে আশ্বাস দিয়েছে, আপাতত সেটাই মেনে নিচ্ছে মার্কিন প্রশাসন।

 

 

About

Popular Links