Monday, June 17, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ছুটি না পেয়ে অফিসে পাঠালেন যমজ বোনকে, টিকটক ভিডিওতে ধরা

টিকটকে আপলোড দেওয়া এক ভিডিওতে বিষয়টি নিজেই জানিয়েছেন ওই তরুণী

আপডেট : ২১ মে ২০২৪, ০২:৩৭ পিএম

অফিসে ছুটির জন্য আবেদন করেছিলেন কানাডিয়ান টিকটক ইনফ্লুয়েন্সার আরি চান্স। কিন্তু কর্তৃপক্ষ ছুটি দেয়নি। সমাধানও বের করে ফেলেন আরি। একইরকম দেখতে যমজ বোনকে অফিসে পাঠিয়ে চলে যান ছুটিতে।

তবে শেষরক্ষা হয়নি। ধরা পড়ে গেছে যমজ বোনদের কারসাজি।

বোনকে অফিসে পাঠিয়ে আরি চান্স চলে যান ঘুরতে। অফিস কর্তৃপক্ষের কাছে ধরা পড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, বোন নোই ভুলক্রমে তাদের “প্রতারণার” কথা জানান সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। তিনি হয়ত বুঝতে পারেননি এ কারণে কর্মক্ষেত্রে সমস্যায় হতে পারে বোনকে।

টিকটকে আপলোড করা এক ভিডিওর ক্যাপশন আরি চান্স বলেন, “টিকটকে আমার যমজ বোনের ভিডিওটি অফিসের বস দেখেছেন, যখন সে আমার হয়ে অফিসে কাজ করছিল।”

নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, টিকটকে আরি চান্সের আট লাখের বেশি ফলোয়ার রয়েছে। তিনি সবসময় দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড নিয়ে ভিডিও বানান। সঙ্গে থাকেন তার যমজ বোন। কিন্তু তাদের অনুসারীরা দুই বোনকে আলাদা করতে পারতেন না।

এদিকে, বিষয়টি বুঝতে পেরে স্বভাবতই অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা একটি কড়া মেইল পাঠান আরিকে।

সেখানে লেখা ছিল, “বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। ছুটির অনুরোধ প্রত্যাখ্যানের পরেও আপনি ছুটিতে গিয়েছেন। বিকল্প হিসেবে আপনি যমজ বোনকে পাঠিয়েছেন, যেটি সম্পূর্ণরূপে অগ্রহণযোগ্য। এটি আপনার সেইসব সহকর্মীকে অপমান করা, যারা নিয়ম মেনে অফিস করেন।”

মেইলে আরও লেখা ছিল, “আপনার এই কাজ কেবল নিজেকে খারাপ হিসেবে প্রতিফলিত করে না। আমাদের কোম্পানির সুনামও ক্ষুণ্ন করে। কর্মক্ষেত্রে এ ধরনের অবহেলা সহ্য করা হবে না। আপনার ক্ষমা চাওয়া উচিত।”

তবে এই ঘটনার সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। আরির পোস্ট করা ওই ভিডিওতে একজন কমেন্ট করেছেন, “বিষয়টি কি আসলেই সত্যি?” সেখানে অন্য একজন রিপ্লাইয়ে বলেছেন, “মনে হয় ভুয়া”।

About

Popular Links