Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে পৃথক মন্ত্রণালয়ের দাবি

সোমবার বাংলাদেশ শিশুকল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে ‘কাউন্সিল অব কনজিউমার রাইটস বাংলাদেশ’-এর এক অনুষ্ঠানে এ দাবি জানানো হয়

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২৩, ০৫:৫৩ পিএম

ভোক্তাদের স্বার্থ ও অধিকার সুরক্ষায় “ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯” এর সংশোধন এবং ভোক্তার কল্যাণে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠার দাবি জানিয়েছে কাউন্সিল অব কনজিউমার রাইটস বাংলাদেশ (সিআরবি)।

সোমবার (১৬ অক্টোবর) সকালে বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিশুকল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে “পঞ্চম সিআরবি কনজিউমার এ্যাওয়ার্ড” অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব দাবি জানান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, “বিদ্যমান ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে ভোক্তাদের অধিকারকে তেমন কোনো গুরুত্বই দেওয়া হয়নি। ভোক্তারা নানাভাবে তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত। আইনে নানা ত্রুটি থাকায় ভোক্তারা আইনি ব্যবস্থা নিতে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এ সমস্যা সমাধানে ভোক্তা অধিকার  সংরক্ষণ আইনের প্রয়োজন।”

তারা আরও বলেন, “ভোক্তাদের স্বার্থ ও অধিকার সুরক্ষায় পৃথক মন্ত্রণালয় না থাকা লজ্জাকর। বর্তমানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি ক্ষুদ্র অধিদপ্তরের মাধ্যমে ভোক্তাদের অধিকার নিশ্চিতে উদ্যোগ নেওয়া হলেও তা খুবই নগণ্য। আর ভোক্তার ভার ব্যবসায়ীদের ওপর দেওয়া কখনো কাম্য নয়। তাই ভোক্তা অধিকার সুরক্ষায় পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন করতে হবে।”

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. খালেদা ইসলাম। সিআরবি’র মহাসচিব ও সেলফ এইড ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কে জি এম সবুজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সিআরবি’র সভাপতি ও সেলফ এইডের চেয়ারম্যান আ হ ম কামরুজ্জামান।

আ হ ম কামরুজ্জামান বলেন, “দেশে খাদ্যপণ্যের দাম নাগালের বাইরে। সিন্ডিকেট না ভাঙলে বাজারের এই অরাজকতা থামানো যাবে না। দিনদিন তা জনগণের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাবে।”

অনুষ্ঠানে ভোক্তাদের সেবাদানে বিশেষ অবদান রাখায় দেশের আট বিভাগের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে কনজিউমার এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। পাশাপাশি ভোক্তাদের অধিকার সংরক্ষণে অবদানের জন্য সিআরবি’র ৫ স্বেচ্ছাসেবীকে পুরস্কৃত করা হয়।

উল্লেখ্য, “কাউন্সিল অব কনজিউমার রাইটস বাংলাদেশ” ২০০৭ থেকে ক্রেতা সচেতনতায় কাজ করে আসছে।

About

Popular Links