• মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:২০ রাত

লুপাস রোগ সম্পর্কে মানুষের স্পষ্ট ধারণা নেই

  • প্রকাশিত ০২:৩০ রাত মে ১৩, ২০১৮
লুপাস রোগ সম্পর্কে মানুষের স্পষ্ট ধারণা নেই

লুপাস হলো বিশ্বের অন্যতম রহস্যময় এক রোগযা মানবদেহের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ক্ষতি সাধন করতে পারে। এটি সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কোনও স্পষ্ট ধারণা নেই।এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিই রোগীদের সঠিক সহায়তা করতে পারে বলে মনে করেন চিকিৎসকরা।

তারা বলছেনলুপাস একটি গ্রিক শব্দ যার অর্থ নেকড়ে। যেহেতু এই রোগের আক্রমণ অনেকটা নেকড়ের আক্রমণের মতো আকস্মিকতাই একে লুপাস বলা হয়। আজ পর্যন্ত এই রোগের সঠিক কোনও কারণ সম্পূর্ণ জানা যায়নি।

লুপাস ফাউন্ডেশন অব আমেরিকার তথ্যানুযায়ীবিশ্বে ৫০ লাখ লুপাস আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। এ রোগ প্রতি এক লাখে ২০ থেকে ১৫০ জনের হতে পারে। শতকরা ৯০ ভাগ লুপাস রোগী কম বয়সী নারী। ছেলেদের এই রোগের প্রকোপ মেয়েদের চেয়ে অনেক কম।

এ পরিস্থিতিতে ১০ মে লুপাস দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে বিএসএমএমইউ এ র‌্যালিসেমিনারসহ নানা আয়োজন করা হয়।  বিএসএমএমইউ এর রিউমাটোলজি বিভাগলুপাস ফাউন্ডেশন অফ বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ রিউমাটোলজি সোসাইটির যৌথ উদ্যোগে দিবসটি উপলক্ষে রোগীদের মাঝে সচেতনতামূলক লিফলেটলুপাস গাইড বই বিতরণ করাসহ রোগীদের সঙ্গে সচেতনতামূলক মতবিনিময়ের আয়োজন করা হয়।

 বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও রিউমাটোলজি সোসাইটির বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ডা. শামীম আহমেদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেনলুপাসের সাধারণ উপসর্গগুলো হলো-চুল পড়ামাথা ব্যথানাক ও গালের ওপর প্রজাপতির পাখার মত লাল চাকাচরম ক্লান্তি বা অবসাদজ্বরমুখে বা নাকে ঘাগিরায় ব্যথা বা ফোলাঅস্বাভাবিক রক্ত জমাটরক্তশূন্যতাবুকের বা গভীর নিশ্বাসের সময় ব্যাথারোদ বা আলোয় শরীরের চামড়ায় প্রভাব বা জ্বালাপোড়াঠাণ্ডায় আঙ্গুল সাদা বা নীলাভ হয়ে যাওয়া এবং হাতপা ও চোখের চারপাশে ফোলা ইত্যাদি।

তিনি বলেনলুপাস সম্পর্কে বাংলাদেশে মানুষের মধ্যে সুষ্পষ্ট ধারণা নেই। ফলে এ রোগ নিরূপিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রোগীপরিবারবন্ধু-বান্ধবআত্মীয়-স্বজনপ্রতিবেশী ও সমাজ নিজেদের মতো করে এ রোগের খারাপ পরিণতি নিয়ে দুঃশ্চিন্তা ও অপব্যাখ্যা করতে থাকেযা অনেকক্ষেত্রে ভুল বোঝাবুঝি ও কুসংস্কারে ভরা।

বিএসএমএমইউ এর প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ  বাংলা ট্রিবিউনকে বলেনএই রোগ হলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। মানুষের বিভিন্ন অঙ্গ আক্রান্ত হতে পারে। ব্রেনহার্টকিডনিচোখ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এটা ওষুধ খেলে সুস্থ থাকবেনা খেলে বাড়তে থাকবে। তিনি আরও বলেনবিএসএমএমইউতে লুপাস ক্লিনিক আছেসপ্তাহের একদিন রোগী দেখা হয় এখানে।