• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:১৪ রাত

জাপানে নিনজা সংকট, হাজার ডলার দিয়েও মিলছে না নিনজা

  • প্রকাশিত ০৪:৩৪ বিকেল জুলাই ২৫, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট ০৪:৪৭ বিকেল জুলাই ২৫, ২০১৮
ninjutsu-warrior-1532514633058.jpg

নিনজাদের জন্য অনেক আকর্ষণীয় অফারও দেয়া হচ্ছে। একজন নিনজা বাৎসরিক ২৩ হাজার ডলার থেকে ৮৫ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ হয় প্রায় ২০ লক্ষ টাকা থেকে ৭২ লক্ষ টাকা। এমনকি কোনো কোনো নিনজা এর চেয়েও বেশি আয় করে থাকে।

নিনজা হল সামন্ত্রতান্ত্রিক জাপানের সময়কার সামন্তদের ভাড়া করা গোপন এজেন্ট বা সৈনিক। এদের কাজ ছিল সামন্তদের আদেশ অনুযায়ী গুপ্তচরবৃত্তি করা, নাশকতা করা, গুপ্তহত্যা করা এবং প্রয়োজনে গেরিলা যুদ্ধেও অংশ নেওয়া। জাপানের ঐতিহ্যের এক অন্যতম জৌলুশ ছিল এই নিনজারা। এদেরকে আলাদা সম্মানের চোখে দেখা হত। বিশেষ দক্ষতা ও নৈপুণ্য ছাড়া যে কারোর পক্ষেই নিনজা হওয়া সম্ভব ছিল না। জাপানে বহু গল্প, গাথা, বই, সিনেমা, কমিক, গেম তৈরি হয়েছে এই নিনজাদের নিয়ে। নিনজাদের ব্যাপারে বহির্বিশ্বের আগ্রহ এখনও কমে যায় নি। পর্যটকরা জাপানে গেলে তাদের অন্যতম আগ্রহের বিষয় থাকে নিনজাদের পারফর্ম্যান্স দেখা। 

কিন্তু এই জাপানই এখন ভুগছে নিনজা পারফর্মারদের সংকটে। 

জাপানের ছোট্ট এক শহর ‘ইগা’। নিনজাদের জন্মস্থান বলে মনে করা হয় এই শহরকে। প্রতিবছর এক লাখের বেশি পর্যটক এই শহরের নিনজা উৎসব দেখতে আসে। 

কিন্তু বর্তমানে এই শহরটি জনসংখ্যার অভাবে ভুগছে। শহরের তরুণ ছেলেমেয়েরা এই পল্লী অঞ্চলের মফস্বল শহরের আর থাকতে চায় না। শহরের অর্থনৈতিক আয়ের উৎসের অন্যতম একটি ক্ষেত্র ছিল নিনজা উৎসব ও নিনজাভিত্তিক পর্যটন। কিন্তু শহরের বাসিন্দারা এখন আর আগের মতো নিনজা হতে অত আগ্রহী না হওয়ায় আয়ের এই ক্ষেত্রটি এখন হুমকির মুখে। ফলে শহরের অর্থনৈতিক অবস্থাও এখন পড়তির দিকে। 

শহরের মেয়র সাকায়ে ওকামোতো বললেন, “আমরা কঠোর চেষ্টা করছি ইগায় নিনজাভিত্তিক পর্যটন আরও বাড়াতে যেন অর্থনৈতিক আয় আরও বাড়ানো যায়।”

নিনজা হতে প্রয়োজন বিশেষ প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা

জাপানে বর্তমানে পর্যটনের দারুণ রমরমা অবস্থা চলছে। জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড ট্যুরিজম অর্গানাইজশনের হিসাব মতে ২০১৭ সালে দেশটিতে ২৯ মিলিয়ন পর্যটক ঘুরতে যায়। কিন্তু অনেক শহরে এরকম রমরমা অবস্থা চললেও ইগার মতো একটু মফস্বল শহরগুলো বরং পর্যটক হারাচ্ছে।

পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য মেয়র ওকামোতো শহরে দ্বিতীয় একটি নিনজা জাদুঘর তৈরির ব্যবস্থা নিয়েছেন। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, পর্যাপ্ত নিনজা পাওয়া যাচ্ছে না। আরও ভালভাবে বললে, নিনজা পারফর্মার পাওয়া যাচ্ছে না।

স্থানীয় নিনজা জাদুঘরের কিউরেটর সুগাকো নাকাগাওয়া জানান, “যে কেউই চাইলে নিনজা হতে পারবে না। খুব দক্ষ প্রশিক্ষণ ছাড়া কারও পক্ষে নিনজা হওয়া সম্ভব না। এ কারণেই নিনজারা আস্তে আস্তে ইতিহাস থেকে হারিয়ে যাচ্ছে”।

নিনজাদের জন্য অনেক আকর্ষণীয় সব অফারও দেয়া হচ্ছে। একজন নিনজা বাৎসরিক ২৩ হাজার ডলার থেকে ৮৫ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ হয় প্রায় ২০ লক্ষ টাকা থেকে ৭২ লক্ষ টাকা। এমনকি কোনো কোনো নিনজা এর চেয়ে বেশিও আয় করে থাকে।

কিন্তু ও উচ্চ আয়ের অফারের পরেও নিনজা হতে আগ্রহী মানুষজন দিনে দিনে কমছেই। ফলে ইগার মতো শহরগুলো হারাচ্ছে পর্যটক, মন্দা যাচ্ছে শহরের অর্থনৈতিক অবস্থা। জাপানও হারাচ্ছে নিনজাদের গৌরবময় ঐতিহ্য।  


বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে।