• শনিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৩৩ বিকেল

গোসলের দৃশ্য পর্ন সাইটে; হাজতে নিউজিল্যান্ড নাগরিক

  • প্রকাশিত ০৫:০২ সন্ধ্যা আগস্ট ১০, ২০১৮
Shower head
হয়রানির শিকার অধিকাংশ নারীর বয়স ৩০ বছরের কম। ছবি: সংগৃহীত

নারীদের ভিডিওগুলো পর্ন সাইটে ছেড়ে দিয়ে ইতিবাচক কমেন্ট চেয়ে বলতেন, তাকে কাজটি চালিয়ে যাওয়ার উৎসাহ জোগাতে।

গোপনে ৩৪ জন নারীর গোসলের দৃশ্য ধারণ করে পর্ন সাইটে ছাড়ার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের এক ব্যক্তি। নিজ গেস্টহাউজে শ্যাম্পুর বোতলে লুকানো ক্যামেরা দিয়ে দৃশ্যগুলো ধারণ করেন ওই ব্যক্তি। সম্প্রতি সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র এক প্রতিবেদনের বরাতে বিষয়টি সম্পর্কে জানা সম্ভব হয়েছে।

বিবিসি’র তথ্য অনুযায়ী, ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৮ সালের ফ্রেবুয়ারি মাস পর্যন্ত মোট ২১৯টি ভিডিও গোপনে ধারণ করেছেন ওই ব্যক্তি। এই হয়রানির শিকার অধিকাংশ নারীর বয়স ৩০ বছরের কম।

নিউজিল্যান্ডের নর্থ আইল্যান্ডের হক বে অঞ্চল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে ওই ব্যক্তিকে। গ্রেফতারের পর পর্ন সাইটে ভিডিও ছাড়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন ওই ব্যক্তি। এ ছাড়াও নিজ জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, পুরো বিষয়টিই অপরাধের উত্তেজনা ও ধরা পড়ার ঝুঁকির মজা পেতে করেছেন তিনি।

শ্যাম্পুর বোতল নামের ওই ক্যামেরা ডিভাইসগুলো ঘরে তৈরি নাকি অনলাইন থেকে কেনা হয়েছে, তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি বলেই জানিয়েছে বিবিসি। সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, আদালতের বরাতে জানা গেছে, প্রথমে নারীদের ওই গেস্টহাউজে থাকতে রাজি করাতেন তিনি এবং গোসলের সময় রিমোট-কন্ট্রোল ডিভাইসের মাধ্যমে গোপন ক্যামেরাগুলো চালু করে দিতেন। পরে ভিডিওগুলো পর্ন সাইটে ছেড়ে দিয়ে ইতিবাচক কমেন্ট চাইতেন, বলতেন তাকে কাজটি চালিয়ে যাওয়ার উৎসাহ জোগাতে।

নিউজিল্যান্ডের পুলিশ এখন ওই ভিডিওগুলো শনাক্ত করে, তা মুছে দিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। এই অপরাধের জন্য নিউজল্যান্ডের আইন অনুযায়ী ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হতে পারে তাকে।       

এদিকে, হয়রানির শিকার নারীরা এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তির এই ঘটনা জানার পর তারা লজ্জিত, ক্ষুদ্ধ এবং দিশেহারা বোধ করছেন।