• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ সকাল

‘আলোর’ পথ দেখাতে ‘ধর্ষণ’ করতেন তিনি

  • প্রকাশিত ০১:৩৭ দুপুর সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

নিজের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় দেখে আগে থেকেই কেটে পড়েছেন নার্কিস তারকাউ।

তিনি যোগ ব্যায়ামের গুরু। তার দাবী, যোগ ব্যায়াম শেখানোর মাধ্যমে মানুষকে ‘আলোর পথ’ দেখান তিনি। তবে তার এই ‘আলোর পথেও’ নাকি ‘কালোর ছোঁয়া’ ছিল। সম্প্রতি ১৪ নারী অভি্যোগ করেছেন যোগ ব্যায়াম শেখানোর নামে তাদের ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতন করেছেন ওই গুরু। 

নার্কিস তারকাউ নামের নামের ওই যোগ গুরু থাইল্যান্ডের কোহ ফানগান দ্বীপের বাসিন্দা। গতকাল শুক্রবার তার এই ‘কেলেঙ্কারির’ খবর প্রকাশ্যে আসে।  

বার্তা সংস্থা আইএনএসের খবরে বলা হয়, ‘ভুক্তভোগী’ ওই ১৪ নারী যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার বাসিন্দা। তারাসহ আরও দুই ব্যক্তি অভিযোগ করেছেন, ওই গুরু শত শত নারীকে ‘আলোর পথ’ দেখানোর নামে ব্রেইনওয়াশ করে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতন করেছেন। 

সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানকে ওই নারীরা জানান, নার্কিস তারকাউ তার ডেরার মধ্যেই এসব কর্মকাণ্ড করতেন। ডেরার মধ্যে এমনটি হচ্ছে বলে এর আগে অভিযোগ আনেন ৩১ নারী। বিষয়টি নিয়ে প্রথমে তাদের সঙ্গে সমঝোতা করার চেষ্টা করে ডেরা কর্তৃপক্ষ। তবে পরে আর বিস্তারিত তদন্ত করে দেখা হয়িনি।  

তবে নিজের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় দেখে আগে থেকেই কোহ ফানগান দ্বীপ থেকে কেটে পড়েছেন নার্কিস তারকাউ।

২০০৩ সাল থেকেই ‘আগামা’ নামের ফানগান দ্বীপের এই যোগ ব্যায়াম প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি বিশ্বের সবচেয়ে বড়। প্রতিবছর এখানে হাজার হাজার মানুষকে যোগ ব্যায়াম প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।