• বুধবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৫ রাত

ছবিতে মালদ্বীপের সাগরতলের আবাসিক হোটেল

  • প্রকাশিত ১০:৫১ রাত নভেম্বর ৬, ২০১৮

দোতলা হোটেলটির ওপরের তলা পানির ওপরে হলেও নিচের তলার পুরোটাই পানির নিচে অবস্থিত

মালদ্বীপের রাঙ্গালি দ্বীপের সাগরতলে গড়ে তোলা হয়েছে আবাসিক হোটেল। ১ কোটি ৫০ লাখ মার্কিন ডলারেরও বেশি খরচ করে হোটেলটি তৈরি করেছে হোটেলস ও রিসোর্টস প্রতিষ্ঠান কনরাড মালদ্বীপ। এরই মধ্যে বিশেষ এই দোতলা হোটেলটি চালুও হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন। বিলাসবহুল হোটেলটির বেশ কিছু ছবিও প্রকাশ করেছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কনরাড হোটেলস ও রিসোর্টস।

সিএনএন-এর বরাতে জানা গেছে, মুরাকা নামের দোতলা হোটেলটির ওপরের তলা পানির ওপরে হলেও নিচের তলার পুরোটাই পানির নিচে অবস্থিত। 

নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে, পানির নিচে এতো সুবিধাসম্পন্ন আবাসিক হোটেল বিশ্বে এটিই প্রথম। এর পানির নিচের অংশটি ভারত মহাসাগরের ৫০০ মিটার নিচে অবস্থিত। হোটেলটিতে সাড়ে ১৬ ফুট আয়তনের রুমের সঙ্গে রয়েছে শৌচাগার। আর জিমনেশিয়াম, বার এবং পুলের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে হোটেলটির ওপরের তলায়। একত্রে হোটেলটিতে নয় জনের থাকার সুবিধা রাখা হয়েছে।

দর্শনার্থীদের জন্য হোটেলের ওপরের তলাটি উন্মুক্ত থাকলেও, নিচের তলাটি এখনও শুধুই অতিথিদের জন্য। তবে নিচের তলাতেও দর্শনার্থীদের জন্য ঘর তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সিএনএন। হোটেলটিতে থাকতে হলে প্রতি রাতের জন্য গুণতে হবে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার বা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৪২ লাখ টাকা।

হোটেলটির সবকিছু তৈরি করা হয়েছে সিঙ্গাপুরে। পরে বিশেষ জাহাজে করে মালদ্বীপে এনে স্থাপন করা হয়েছে বলেই জানিয়েছে সিএনএন। তবে সবকাজ এখনও শেষ হয়নি, এখনও হোটেলটির আভ্যন্তরীন বিভিন্ন কাজ চলছে।