• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:১৪ বিকেল

থানচি ভ্রমণের অনুমতি দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন

  • প্রকাশিত ০৫:৩১ সন্ধ্যা জুলাই ২৩, ২০১৯
থানচি
ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

গত ৬ জুলাই থেকে ভারী বর্ষণে সাঙ্গু নদীর পানির প্রবাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় পার্বত্য জেলা বান্দরবানের থানচি উপজেলার পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটক যাতায়াতে নিরুৎসাহিত করেছিল উপজেলা প্রশাসন।

১৭দিন বন্ধ থাকার পর পর্যটকদের নৌপথে থানচির দুর্গম পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে আবারও ভ্রমণের অনুমতি দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। সাঙ্গু নদীর পানির স্বাভাবিক প্রবাহ ফিরে আসায় পর্যটকরা আনায়াসেই সেখানে বেড়াতে যেতে পারবেন বলে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  

২৩ জুলাই, মঙ্গলবার বেলা ১২টায় থানচির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুল হক মৃদুল এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রশাসন থেকে থানচির দুর্গম নাফাকুম পর্যন্ত তিনদিন থাকার অনুমতি প্রদান করা হয় পর্যটকদের।

কয়েকজন জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয়রা জানিয়েছেন, গত ৬ জুলাই থেকে ভারী বর্ষণে সাঙ্গু নদীর পানিপ্রবাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় পার্বত্য জেলা বান্দরবানের থানচি উপজেলার পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটক যাতায়াতে নিরুৎসাহিত করেছিল উপজেলা প্রশাসন।

জানা যায়, ওই সময়ে নদীতে প্রচুর পানি হওয়ায় নৌপথে থানচির পর্যটন কেন্দ্রগুলো ভ্রমণে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়তে হতে পারে এমন তথ্যের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসন পযটকদের যাতায়াতে নিরুৎসাহিত করে।

প্রতিবছরই থানচির রেমাক্রি ও তিন্দু ইউনিয়নের নাফাখুম, তাজিংডং, বড় পাথর, ছোটপাথর এবং আন্ধারমানিক পর্যটন কেন্দ্রগুলো ভ্রমণে হাজারো পর্যটক সেখানে বেড়াতে যান।