• বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২২, ২০২১
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:১৩ বিকেল

স্মার্ট ফোনের রাজধানী শেনজেন

  • প্রকাশিত ০৬:১১ সন্ধ্যা নভেম্বর ২৮, ২০১৯
শেনজেন শহর
পরিকল্পনামাফিক ছবির মতো সুন্দর করে গড়ে তোলা হয়েছে চীনের শেনজেন নগরীকে। রয়টার্স

সমগ্র বিশ্বে উৎপাদিত স্মার্টফোনের শতকরা ৭০ ভাগ তৈরি হয় শেনজেন শহরে

বর্তমানে সমগ্র বিশ্বের প্রায় ২৭০ কোটি মানুষ স্মার্টফোন ব্যবহার করেন। অতীতের কোনো প্রযুক্তিপণ্যের ব্যবহার স্মার্টফোনের মতো এতোটা বিস্তার লাভ করেনি। তবে, স্মার্টফোন সহজলভ্য করতে সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছে চীন। চীনের শেনজেন শহরে তৈরি হয় বিশ্বের প্রায় ৭০% স্মার্টফোন। শেনজেন শহরকে এই কারণে স্মার্ট ফোনের রাজধানী বলা হয়ে থাকে।

বর্তমানে এই শহরটি বিশ্বের অন্যতম অর্থনৈতিক শহর হলেও এক সময় এটি ছিল জেলেদের পল্লী। শেনজেন চীনের সীমান্তবর্তী গুয়াং ডং প্রদেশে অবস্থিত। শহরটিকে ১৯৮০ সালে চীনের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গড়ে তোলা হয়। মাত্র ৪০ বছরের মধ্যেই শহরটি বিশ্ব প্রযুক্তির কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছে গেছে। এই সময়ে শহরটির আয়তন বেড়েছে প্রায় ৫০ গুণ। বর্তমানে চীনের বৃহত্তম শহরের তালিকায়ও শেনজেনের অবস্থান সপ্তম। অত্যাধুনিক এই মেগাসিটির জনসংখ্যা ২ কোটি। 

জানা যায়, শ্রমিকদের মজুরি ও পরিবহন ব্যয় কম হওয়ার কারণে প্রযুক্তিখাতে বিনিয়োগকারীদের আকর্ষনের কেন্দ্র হয়ে ওঠে শেনজেন। এই শহরের কারণেই অল্প সময়ের মধ্যে চীনের প্রযুক্তিপণ্য বিশ্বব্যাপি একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারে সক্ষম হয়। পুরো বিশ্বের প্রায় ৯০শতাংশ ইলেকট্রনিক্স পন্য ও এর যন্ত্রাংশ উৎপাদিত হয় চীনে। আর সমগ্র বিশ্বে উৎপাদিত স্মার্টফোনের শতকরা ৭০ ভাগ তৈরি হয় শেনজেন শহরে। শুধু তাই নয়, প্রতিবছর উৎপাদিত বিপুল পরিমাণ মোবাইলের যন্ত্রাংশের প্রায় পুরোটাই এই শহর থেকে সরবরাহ করা হয়। বলা যায়, মধ্যবিত্তদের কাছে স্মার্টফোন সহজলভ্য করেছে এই শেনজেন শহর।

হুয়াওয়ে, কনকা, জেটিই, ওয়ান প্লাস ইত্যাদি নামকরা চীনা কোম্পানিগুলোর সদর দপ্তর শেনজেনে অবস্থিত। আরেক চীনা কোম্পানি শাওমি'র সদরদপ্তর বেইজিংয়ে হলেও শেনজেনে তাদের বিশাল গবেষণাগার রয়েছে। চীনা কোম্পানি বাদেও সনি, অ্যাপল, স্যামসাং, ক্যাননের মত কোম্পানিগুলোর পণ্যও উৎপাদিত হয় শেনজেনে।

মাত্র চার দশকের মধ্যে চীনের সবচেয়ে ধনী শহরে পরিণত হয়েছে শেনজেন। বিশ্ব অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোর মধ্যে শেনজেনের অবস্থান দ্বাদশ। পুরো চীনের গড় জিডিপি প্রবৃদ্ধি যেখানে ৯.৮ শতাংশ সেখানে শেনজেনের গড় জিডিপি প্রবৃদ্ধি ১৬.৩ শতাংশ। শহরটির বাসিন্দাদের গড় আয় সাংহাই ও বেইজিং এর চেয়ে প্রায় ৫০% বেশি। শেনজেন বন্দর বিশ্বের ৩য়  ব্যস্ততম বন্দর । এই শহরের উৎপাদিত প্রযুক্তি পণ্য এই বন্দর দিয়েই সারা বিশ্বে পাঠানো হয়।

শেনজেন শহরে ভূমি অপচয় রোধ করতে পরিকল্পিতভাবে তৈরি করা হয়েছে বহু আকাশচুম্বী ভবন। শহরে ১০০ তলাবিশিষ্ট ভবনগুলো বাদ দিলেও ২০০ মিটারের বেশি উচ্চতার ভবন রয়েছে প্রায় শ'খানেক।

বহুতল ভবন ছাড়াও শেনজেনে রয়েছে বেশ কিছু থিম পার্ক । এখানকার সবচেয়ে বিখ্যাত পার্কটি হলো উইন্ডো অব দি ওয়ার্ল্ড। মাত্র আধা কিলোমিটার এলাকার মধ্যে বিশ্ব বিখ্যাত  ১৩০টি   স্থাপনার ক্ষুদ্র সংস্করন রয়েছে এই পার্কে।

52
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail