• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩০ দুপুর

আমলকীর যত উপকারিতা

  • প্রকাশিত ০৩:৪৯ বিকেল জানুয়ারী ২, ২০২০
আমলকী
ছবি: সংগৃহীত

একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতিদিন ৩০ মিলিগ্রাম ভিটামিন ‘সি’ প্রয়োজন। দিনে দু'টি আমলকী খেলে এই চাহিদা পূরণ হয়

আমলকীর ভেষজ গুণ অনেক। এর ফল ও পাতা উভয়ই ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। সবাই জানেন আমলকীতে প্রচুর ভিটামিন ‘‘সি’’ থাকে। পুষ্টি বিজ্ঞানীদের মতে, আমলকীতে পেয়ারার ও কাগজিলেবুর তুলনায় যথাক্রমে তিন ও ১০ গুণ বেশি ভিটামিন ‘‘সি’’ রয়েছে। 

এছাড়া, ছোট্ট এই ফলটিতে কমলার চেয়ে ১৫ থেকে ২০ গুণ বেশি, আপেলের চেয়ে ১২০ গুণ বেশি, আমের চেয়ে ২৪ গুণ এবং কলার চেয়ে ৬০ গুণ বেশি ভিটামিন ‘‘সি’’ রয়েছে। 

একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতিদিন ৩০ মিলিগ্রাম ভিটামিন ‘‘সি’’ প্রয়োজন। দিনে দু'টি আমলকী খেলে এই চাহিদা পূরণ হয়। আমলকী খেলে রুচি বাড়ে। স্কার্ভি ও দাঁতের রোগ সারাতে টাটকা আমলকীর জুড়ি নেই। এছাড়া পেটের পীড়া, সর্দি, কাশি ও রক্তহীনতার জন্যও আমলকী খুবই উপকারী। এটি জন্ডিস রোগে উপকারী। 

আমলকী, হরিতকী ও বহেরাকে একত্রে “ত্রিফলা” বলা হয়। এই মিশ্রণ রাতে ভিজিয়ে রেখে সকালবেলা ছেঁকে নিয়ে খালি পেটে শরবত হিসেবে খেলে পেটের অসুখ ভালো হয়।

এছাড়াও আমলকী খেলে-

গলার ব্যথা কমে

আয়ুর্বেদিক বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত এক গ্লাস আমলকীর রসে পরিমাণমতো আদা এবং মধু মিশিয়ে খেলে গলার ব্যথা তো কমেই, সেইসঙ্গে কফ এবং সর্দি-কাশির প্রকোপ কমতেও সময় লাগে না। তাই এমন ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় গলার ব্যথা শুরু হলে আমলকীর রস হতে পারে আপনার সহায়ক। 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

আমলিকতে থাকা প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন “সি” ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এটি শরীরে প্রবেশ করার পর দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে এতটাই শক্তিশালী করে তোলে যে ছোট-বড় কোনো রোগই কাছে ঘেঁষতে পারে না। সেইসঙ্গে শরীরে থাকা ক্ষতিকর উপাদানও বের করে দেয়।

দৃষ্টিশক্তির উন্নতি

সারাক্ষণ কম্পিউটার-মোবাইল ব্যবহারের ফলে চোখের ক্ষতি পূরণে খাদ্যতালিকায় আমলকী থাকা জরুরি। আমলকী দ্রুত সময়ে দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়।

হজমশক্তির উন্নতি

প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকায় নিয়মিত আমলকী খেলে বদহজমের সমস্যা দূর হয়।

সংক্রমণের আশঙ্কা কমে

ভিটামিন ‘‘সি’’ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে এতটাই মজবুত করে যে, বেশিরভাগ জীবাণু শরীরে প্রবেশ করতে পারে না। ফলে সংক্রমণের আশঙ্কা যেমন কমে, তেমনি আবহাওয়া পরিবর্তন হলেও সর্দি-কাশির ভয়ও দূর হয়।

ত্বকের সৌন্দর্য বাড়ায়

আমলকীতে থাকা কিছু খনিজ এবং উপকারী ভিটামিন ত্বকে পানির ঘাটতি দূর করে। সেইসঙ্গে পুষ্টির চাহিদাও মেটায়। ফলে ধীরে ধীরে ত্বক উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে।