• শুক্রবার, অক্টোবর ৩০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৬ রাত

ঘরে বসে যেভাবে পাঠকের কাছে সংবাদ পৌঁছে দিচ্ছি আমরা

  • প্রকাশিত ০৪:৩০ বিকেল এপ্রিল ২০, ২০২০
ঢাকা ট্রিবিউন
মাহমুদ হোসেন অপু/ঢাকা ট্রিবিউন

জীবনের ঝুঁকি নিয়েও আমাদের রিপোর্টাররা কাজ করে যাচ্ছেন মাঠে। পাঠকের সামনে আমরা তুলে ধরছি সদ্য পাওয়া খবর। পরের দিনের পত্রিকায় তুলে ধরছি বিস্তারিত

বিশ্বজুড়ে ভয়াল থাবা বিস্তার করেছে করোনাভাইরাস। আপাতত পরিত্রাণ কিংবা প্রতিরোধের একমাত্র উপায় ঘরে থাকা। কিন্তু এমন সঙ্কটময় পরিস্থিতিতেও থেমে থাকার অবকাশ নেই গণমাধ্যমের। প্রতি ঘণ্টায় অনলাইনে সংবাদ প্রকাশ করতে হবে, প্রতিদিনই ছাপতে হবে সংবাদপত্র। “ঘরে বসে কাজ করা” সংবাদকর্মীদের জন্য এক বিশাল চ্যালেঞ্জ। এজন্য প্রয়োজন কঠোর সমন্বয় এবং আরও বেশি মনোযোগ।

করোনাভাইরাস বাংলাদেশে তার থাবা বিস্তারের সঙ্গে সঙ্গেই কর্মীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে বাড়িতে থেকে কাজ করার জন্য বলেছে ঢাকা ট্রিবিউন। গত এক মাস ধরে ঘরে বসেই কাজ করছি আমরা। তবুও প্রিন্ট ও অনলাইন উভয় ভার্সনের কাজে সামান্যতম ব্যতয় ঘটেনি। তাই ঘরে বসে কাজ করার এই অভিজ্ঞতা আমরা তুলে চাই, যাতে আমাদের এই অভিজ্ঞতা গণমাধ্যম শিল্পের জন্য সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে। এই সঙ্কটময় মুহূর্তে যাতে গণমাধ্যমের কাজ কোনোভাবেই থেমে না থাকে।

আমরা জানি, সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে যোগাযোগ হলো মূল বিষয়। আর অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ আরও গুরুত্বপূর্ণ। ঘরে বসে কাজ করার ক্ষেত্রে একইসঙ্গে অনেক মানুষের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ রক্ষা করা কঠিন।

একটু ব্যাখ্যা করা যাক- প্রিন্টের কাজের ক্ষেত্রে দরকার গভীর সমন্বয়। প্রয়োজন সংশ্লিষ্ট কর্মীদের প্রত্যক্ষ উপস্থিতি। কোন প্রতিবেদন কোন পাতায় যাবে, সংবাদ বা নিবন্ধের আয়তন কতখানি বিস্তৃত হবে ইত্যাদি বিষয়ের ক্ষেত্রে বিভিন্ন বিভাগের কর্মীদের পারস্পরিক সমন্বয়ের কোনো বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে মুঠোফোনে আলাদাভাবে প্রত্যেককে কল করাও সম্ভব না। আগামীকালের সংবাদপত্রটি দেখতে (পেজ লেআউট) কেমন হবে, তা দূরে বসে সহকর্মীদের বোঝানো বা পরামর্শের আদান-প্রদান করা কঠিন।

চলমান পরিস্থিতিতে সবাই যখন বাধ্য হয়ে ঘরবন্দি তখন কাজের খাতিরে সংবাদকর্মীদের প্রয়োজন উপরোক্ত সীমাবদ্ধতাগুলোকে জয় করা। তাই প্রয়োজন এমন একটি মাধ্যমের যেখানে ফোন কল ছাড়াই আমরা পরস্পরের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ বজায় রাখতে পারি। তাই আমরা ব্যবহার করছি “ডিসকর্ড” নামে একটি সফটওয়্যার। আমরা মনে করি, দলগত যোগাযোগ রক্ষার ক্ষেত্রে এটি সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা। এর মাধ্যমেই আমাদের নিউজ এডিটররা গ্রাফিক্স টিমের সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রাখছেন।


আরও পড়ুন- করোনাভাইরাস: মাঠে থাকা সাংবাদিকরা কতটুকু নিরাপদ?


ডিসকর্ড অ্যাপের উল্লেখযোগ্য সুবিধাগুলো হলো- ১. ফোনে কল এলেও গ্রাফিক্স বা অন্য যে টিমের সঙ্গে আপনি যোগাযোগ বজায় রাখতে চাইছেন সেটি বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে না, ২. কোনো নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে প্রয়োজন হলে সহকর্মীরা সহজেই তাকে ডিসকর্ডের চ্যানেলে খুঁজে পাবেন, ৩. টিমের সঙ্গে পারস্পরিক যোগাযোগের আরেকটি অ্যাপ “স্ল্যাক”-এর মতো এখানেও আপনি ফাইল ট্রান্সফারসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সুবিধাগুলো পাবেন।

আমরা মনে করি, এই অ্যাপটির সাহায্যে আপনি বিভিন্ন বিভাগের জন্য আলাদা “ভয়েস রুম” ব্যবহার করে অফিসে বসেই কাজ করার একটি আবহ তৈরি করতে পারবেন।

পত্রিকা মুদ্রণের ক্ষেত্রে আরেকটি চ্যালেঞ্জের জায়গা হলো গ্রাফিক্স টিমের কর্মীরা কী করছেন তা পর্যবেক্ষণ করা। ঢাকা ট্রিবিউনে এই বিষয়টিকে সহজে সমাধান করা হয়েছে “অ্যানিডেস্ক” ও “টিম ভিউয়ারের” মতো সফটওয়্যারের সহায়তায়। এই সফটওয়্যারগুলোর মাধ্যমে আপনি দূরে বসে অন্য একটি কম্পিউটারকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা বলে, আমাদের দেশের ইন্টারনেট কানেকশনে অ্যানিডেস্ক ভাল কাজ করে। এই সফটওয়্যারে আছে কথা বলার সুবিধাও। কিন্তু ছোট্ট একটি সমস্যাও রয়েছে এক্ষেত্রে, কথা বলতে গেলে প্রায়ই “স্ক্রিন শেয়ারিং” অপশনটি বাধাগ্রস্ত হয়।

ডকুমেন্ট আর ছবি আদান-প্রদানের জন্য আমরা ব্যবহার করি “গুগল ড্রাইভ”। ইমেইলে আসা ছবি সহজেই গুগল ড্রাইভের ফোল্ডারে শেয়ার করা যায়। রিপোর্টার আর সহ-সম্পাদকরা সহজেই গুগল ড্রাইভে সেভ করা ফাইলটি সম্পাদনার মাধ্যমে পারস্পরিক সমন্বয় করতে পারেন। অফিসে কাজের ক্ষেত্রে আমরা সাধারণতঃ নিজস্ব সার্ভার ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় ফাইল আদান-প্রদান করি। কিন্তু এই মুহূর্তে সেটি সম্ভব না হওয়ায় বাধ্য হয়েই ব্যবহার করতে হচ্ছে ক্লাউড ফাইল শেয়ারিং সার্ভিস গুগল ড্রাইভ। যা নিরাপত্তার জন্যও কিছুটা ঝুঁকিপূর্ণ।


আরও পড়ুন- প্রথম আলোর সংবাদকর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত


এই কার্যক্রমের পুরোটা অনলাইনে পরিচালনার ক্ষেত্রে ইমেইলের ব্যবহার করা যেতে পারত। কিন্তু আমাদের প্রয়োজন তাৎক্ষণিক যোগাযোগ। তাই আমরা নিজেদের মধ্যে বিশেষ করে রিপোর্টার এবং সহ-সম্পাদকদের মধ্যে কার্যকরি সমন্বয়ের জন্য আমরা ব্যবহার করছি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের “গ্রুপ চ্যাট” ও “কল কনফারেন্স” সুবিধা।

জীবনের ঝুঁকি নিয়েও আমাদের রিপোর্টাররা এই সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে কাজ করে যাচ্ছেন মাঠে। প্রয়োজনে ঘটনাস্থল থেকেই তারা জানাচ্ছেন বিস্তারিত। পাঠকের সামনে আমরা তুলে ধরছি সদ্য পাওয়া (ব্রেকিং নিউজ) খবর। পরের দিন পত্রিকায় তুলে ধরছি বিস্তারিত। সঠিকভাবে কাজটি করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সর্বোচ্চ ইতিবাচক ব্যবহার করছি আমরা।

তবে অসুবিধা হলো, একসঙ্গে অনেক মানুষ মেসেজ দিতে থাকলে ক্ষুদে বার্তার (টেক্সট) বক্তব্যগুলো এলোমেলো হয়ে যেতে পারে। তাই অফিসিয়াল কাজে ব্যবহৃত গ্রুপগুলোতে অপ্রয়োজনীয় কিংবা অপ্রাসঙ্গিক কথাবার্তা না বলাই উত্তম। কিন্তু একঘেঁয়েমি দূর করে কাজের উদ্যম ধরে রাখতে মাঝেমধ্যে একটু মজা বা আড্ডা দেওয়া প্রয়োজন। তাই এ ধরনের কথাবার্তার জন্য আলাদা মেসেজিং গ্রুপ বা চ্যানেল ব্যবহার করা যেতে পারে।


তৌসিফ ওসমান ঢাকা ট্রিবিউনের প্রোডাকশন এডিটর হিসেবে কর্মরত। 

ভাষান্তর- আহমেদ সার্জিন শরীফ



54
50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail