Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

খেলায় প্রিয় দল হারলে যা যা করতে পারেন

সাধারণ কিছু জিনিস মেনে চললেই প্রিয় দলের হারের কষ্ট অনেকাংশে লাঘব করা যায়

আপডেট : ১১ জুলাই ২০২১, ০৮:৪৯ পিএম

খেলায় জয়-পরাজয় একটি স্বাভাবিক ঘটনা। কিন্তু কোনো দলকে সমর্থন করলে কোনও টুর্ণামেন্টে বা বড় কোন ম্যাচে প্রিয় দলের হারের বেদনা আমাদের সহ্য করতেই হয়। আর এই ক্ষতে বাড়তি যন্ত্রণা বিপক্ষ দলের ভক্তদের বিজয়োল্লাস।

বিষয়গুলো কষ্টদায়ক হলেও এগুলো নিয়ে মনমরা হয়ে থাকা কোনো সমাধান নয়। লাইফস্টাইল ও খেলাধুলা বিষয়ক কিছু ওয়েবসাইট অবলম্বনে এই অবস্থা থেকে বের হয়ে আসার কিছু পদ্ধতি তুলে ধরা হলো:

পুরোনা সাফল্যের স্মৃতি মনে করা: চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে পরাজয়ের পর লিভারপুলের ভক্তরা প্রথমেই যে কাজটি করে থাকে তা হলো অতীতের সাফল্যময় স্মৃতি বারবার দেখা। তাই এই পদ্ধতিটি "লিভারপুল ভক্তদের থেরাপি" হিসেবেও পরিচিত।  বর্তমান ব্যর্থতা ভুলতে এই পদ্ধতিটি বেশ কার্যকর। তাই প্রিয় দল হারলে তাদের অতীতের সাফল্যময় স্মৃতির পাতায় একবার চোখ বুলানো যেতেই পারে। আর তথ্য-প্রযুক্তির উতকর্শতার এই যুগে এটা তেমন কষ্টসাধ্য বিষয় নয়।

কষ্টের অনুভূতি প্রকাশ করা: দুঃখ-কষ্ট চেপে রাখলে তা আরো বেড়ে যায়। তাই সেই অনুভূতি না চেপে রেখে মনের দুঃখ-কষ্টের ভার কমতে পারে এমন কিছু করার মাধ্যমে প্রকাশ করে দেয়াই সর্বোত্তম পন্থা। তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন অন্যের কিংবা টিভির ওপর রাগ ঝাড়া না হয়। মানসিক-চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই থেরাপি সমর্থন করে বলে জানায় খেলাধুলা বিষয়ক আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট "গোলডটকম"।

কিছু সময়ের জন্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এড়িয়ে চলা: টিভির খবর বা স্ক্রল হোক আর সামাজক যোগাযোগমাধ্যমের নিউজফিড, প্রিয় দলের ব্যর্থতার গল্প বারবার দেখলে মন খারাপের পরিমাণ আরও বাড়বে। তাই এগুলো থেকে কিছু সময়ের জন্যে বিরতি নেয়াই উত্তম।

সমব্যথীদের সঙ্গে আলাপ: ইংরেজীতে একটা প্রবাদ আছে- শেয়ারিং ইজ কেয়ারিং। আপনার মতই আপনার সমর্থন করা কোন দলের সমর্থকের সাথে যদি নিজের অনুভূতিগুলো ভাগাভাগি করেন কিংবা দলের হারের ব্যাপারে তার কষ্টের কথা যদি শুনেন, তাহলে তা অনেকাংশেই আপনার কষ্টের ভার লাঘব করবে। "বডি-মাইন্ড-সৌল ডটকম" ওয়েবসাইটের একটি প্রকাশিত প্রতিবেদন এই ব্যাপারে সমর্থন জানায়। 

ব্যায়াম: যেকোনো মানসিক চাপ, বিষণ্ণতা কমাতে চিকিৎসাবিজ্ঞানে শরীরচর্চার কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়। কারণ বিভিন্ন গবেষণায় বারবার প্রমাণিত হয়েছে, ব্যায়ামের ফলে "এন্ডোরফিন্স" হরমোনের নিঃসরণ মনে জমে থাকা ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে।  শরীরচর্চার ফলে "ডোপামিন" ও  "সেরোটনিন" হরমোনের নিঃসরণ বাড়ে, যা কিনা সুখের অনুভূতির উদ্দীপনা জাগায়।

মনে রাখুন দিনশেষে এটি একটা খেলা ও বিনোদনের মাধ্যম: মনে রাখতে হবে দিনের শেষে এটি শুধুই একটা খেলা আতে হার-জিত অবশ্যম্ভাবী তাছাড়া এটিকে নিজের বিনোদনের মাধ্যম হিসবেও ভেবে নেয়া যায়।  প্রিয় দলের হারের বেদনার স্থায়িত্ব বেশিদিন থাকে না বলেই  চিকিৎসা বিজ্ঞান সমর্থন করে। "থ্রাইভওয়ার্কস ডটকম’এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, প্রিয় দল হারার দুঃখের অনুভতি খুব বেশি হলে দুই সপ্তাহ থাকতে পারে। সাধারণত দুই থেকে তিন দিন পরেই সব ঠিক হয়ে যায়।

 

About

Popular Links