Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জিন্স পরায় প্রাণ দিতে হলো কিশোরীকে!

হাসপাতালে নেওয়ার কথা বলে অচেতন নেহাকে ব্রিজের উপর থেকে ফেলে দেয় তারা দাদা ও চাচা

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০৬:৩৭ পিএম

ভারতে জিন্স পরায় ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরীকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার পরিবারের সদস্যদের উপর।

সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, উত্তর প্রদেশে দেওরিয়া জেলার সাবরেজিখার্গ গ্রামের নেহা পাসওয়ান নামের ওই কিশোরীকে হত্যা ও হত্যার পর আলামত নষ্টের অভিযোগে তারই পরিবারের নয় সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

বিবিসি’র বরাত দিয়ে নিহত কিশোরীর মা শকুন্তলা দেবী জানান, ঘটনার দিন নেহা সারাদিন উপোস ছিল। সন্ধ্যায় ধর্মীয় আচার পালন করার সময় জিন্স আর টপস পরার জন্য নেহার দাদা-দাদি কথা শোনায়। সেসময় নেহাও পালটা জবাব দেয় “জিন্স তৈরি করা হয়েছে পরার জন্য, তাই সে পরেছে”। কথা-কাটাকাটির এক পর্যায়ে তার দাদা-চাচারা নেহাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করতে শুরু করে।

তিনি আরও বলেন, আঘাতের পর নেহা অচেতন হয়ে পড়লে, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে একটি অটোরিকশা ডেকে নেহাকে নিয়ে যায় তারা।

কিন্তু পরদিন সকালে গান্ধাক নদীর উপর সেতু থেকে একটি মেয়ের মৃতদেহ ঝুলছে খবর পেয়ে জানা যায় মেয়েটি নেহা।

পরবর্তীতে নেহার দাদা-চাচাসহ পরিবারের নয় সদস্য এবং অটোরিকশা চালকের বিরুদ্ধে মামলা করে পুলিশ।

পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা শ্রিয়াস ত্রিপাঠী জানান, নেহার দাদা-দাদি, এক চাচা ও অটোরিকশা চালককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে নেহার বাবা অমরনাথ পাসওয়ান জানান, তিনি পাঞ্জাব রাজ্যের লুধিয়ানায় দিনমজুরির কাজ করেন। নেহাসহ অন্য সন্তানদের পড়াশোনা করানোর জন্য দিনরাত পরিশ্রম করেন। সন্তানদের কাছে থাকতে পারেন না। এখন সেই মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ শুনে বাড়ি ফেরা লাগলো।

About

Popular Links