Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

হার্ট অ্যাটাকের এক মাস আগে শরীরে যেসব উপসর্গ দেখা যায়

যাদের উচ্চ রক্তচাপ বা রক্তে শর্করার মাত্রা বেশি কিংবা যাদের স্থুলতার সমস্যা রয়েছে, তারা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিতে বেশি থাকেন

আপডেট : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫০ পিএম

হৃদপিণ্ডের কোনো শিরায় রক্ত জমাট বেঁধে হৃদপিণ্ডে রক্ত প্রবাহে বাঁধার সৃষ্টি করলেই হার্ট অ্যাটাক হয়। নীরব ঘাতক হওয়ায় যেকোনো সময়ে যেকোনো বয়সের যে কেউ হার্ট অ্যাটাকের শিকার হতে পারেন। তবে যাদের উচ্চ রক্তচাপ বা রক্তে শর্করার মাত্রা বেশি কিংবা যাদের স্থূলতার সমস্যা রয়েছে, তারা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিতে বেশি থাকেন।

অনেক সময় বুকে কোনো ধরণের ব্যথা ছাড়াই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে বলে কোনটা সাধারণ বুকে ব্যথা আর কোনোটা হার্ট অ্যাটাক তা অনেকে বুঝতে পারে না। তবে নিম্নলিখিত লক্ষণ বা উপসর্গগুলো দেখা দিলে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। কারণ হার্ট অ্যাটাক হওয়ার মাসখানেক আগে এসব লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা যায়।


আরও পড়ুন- তরুণ বয়সে হৃদরোগের ঝুঁকি এড়াতে করণীয়


১। হৃদযন্ত্রের কোনো রকম সমস্যা হলে ফুসফুস অক্সিজেন কম পায়। ফলশ্রুতিতে শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট হয় বা দম আটকে আসার অনুভূতি হয়। ফলে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা থাকে। তাই এরকম লক্ষণ দেখা দিলে অবিলম্বে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করুন।

২। শরীরে সঠিকভাবে রক্ত চলাচল না হলে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিলে মানুষ অল্পতেই হাঁপিয়ে যায়। এমন লক্ষণ দেখা দিলে বুঝতে হবে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা রয়েছে।

৩। মাঝরাতে হঠাৎ ঘুম ভেঙে দরদর করে ঘামলে কিংবা যদি দেখা যায় বিনা কারণে ঘাম হচ্ছে তাহলে তা উপেক্ষা করা ঠিক নয়। কারণ হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি রয়েছে।    

৪। বুকে ব্যথা বা চাপ লাগার মতো অনুভূতি হলে অবশ্যই সরাসরি চিকিৎসককে জানাতে হবে। কারণ হার্ট অ্যাটাকের আগে এমন উপসর্গ প্রায়ই দেখা যায়।

৫। মেয়েদের ক্ষেত্রে উপরোক্ত লক্ষণগুলো ছাড়াও কিছু আলাদা উপসর্গ দেখা যায়। যেমন পেটে অস্বস্তি, পিঠে ব্যথার মতো কিছু অন্যান্য লক্ষণ। এসব উপসর্গ দেখা দিলে কাল-বিলম্ব না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

About

Popular Links