Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অনলাইনে অর্ডার করা চিকেন উইংস খেয়ে ক্রেতাকে হাড় দিয়ে গেলেন ডেলিভারি ম্যান!

হাড়ের সঙ্গে ডেলিভারিম্যানের পক্ষ থেকে বার্তা লেখা একটি চিরকুটও পেয়েছিলেন খাবার অর্ডার করা গ্রাহক 

আপডেট : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:৩৭ পিএম

দৈনন্দিন খাবারদাবারের জন্যও অনেকে এখন অনলাইন ডেলিভারির ওপর নির্ভরশীল। কয়েকটি ক্লিকে বেশিরভাগ রেস্টুরেন্ট থেকে পছন্দমতো খাবার অর্ডার করা যায়। তবে এক্ষেত্রে থাকে বিড়ম্বনার ঝুঁকিও। অনলাইনে নিয়মিত কেনাকাটা করেন অথচ একবারও বিব্রতকর অভিজ্ঞতার মুখে পড়েননি, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কষ্টকর।

তেমনই এক অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন ড্যামিয়েন স্যান্ডার্স। তিনি পেটের ক্ষুধা মেটাতে অনলাইন থেকে অর্ডার করেছিলেন চিকেন উইংস। তবে ডেলিভারিতে বার্তা লেখা একটি চিরকুটের সঙ্গে মুরগির হাড় জোটে তার কপালে।

এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

যদিও কোন অ্যাপের মাধ্যমে এবং কোন রেস্টুরেন্ট থেকে চিকেন উইংস অর্ডার করেছিলেন, সেটি অবশ্য ড্যামিয়েন স্যান্ডার্স জানাননি। তবে যেখান থেকে তিনি অর্ডার দিয়ে থাকেন না কেন, এ ঘটনায় রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষের দোষ নেই বললেই চলে। কারণ তার অর্ডার করা চিকেন উংস গেছে ডেলিভারিম্যানের পেটেই। চিরকুটটাও ছিল তারই দেওয়া।


চিরকুটে ডেলিভারিম্যান লেখেন, “আমি দুঃখিত আমি আপনার খাবার খেয়ে ফেলেছি। আমি দরিদ্র এবং ক্ষুধার্ত। ধরে নিন বিরক্তিকর এই চাকরি ছাড়ার উপায় হিসেবেই আমি এই পথ বেছে নিয়েছি। ভালো থাকবেন।”

পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ড্যামিয়েন স্যান্ডার্স নিজের এই বিব্রতকর অভিজ্ঞতার কথা সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করেন। এ ঘটনা নিয়ে ইনস্টাগ্রামে তার আপলোড করা এক ভিডিও ২ হাজারের বেশিবার দেখা হয়েছে। সেই ভিডিওর কমেন্ট সেকশনে অনেকেই ড্যামিয়েন স্যান্ডার্সকে নিয়ে মজা করেছেন। আবার ডেলিভারিম্যানকে ক্ষমাও করে দিতে বলেছেন কেউ কেউ। তবে ঘটনাটি বানোয়াট বলেও অভিযোগ করেছেন অনেকে।

এক ব্যবহারকারী বলেন, “ব্যাপারটি সত্যিই মজার না।” আরেক ব্যবহারকারী বলেন, “থাক, তাকে ক্ষমা করে দাও।” অপর এক ব্যবহারকারী বলেন, “নিজের অহংকারের জন্য আপনি তাকে দোষ দিতে পারেন না।”

About

Popular Links