Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গরমে রোজা, ত্বকের জন্য প্রয়োজন বাড়তি যত্ন


রমজান মাসে দীর্ঘ সময়ের জন্য শরীরে পানির প্রবেশ করে না, ফলে পানিশূন্যতা দেখা দেওয়াটা স্বাভাবিক

আপডেট : ২৫ মার্চ ২০২৩, ০১:১৭ পিএম

চলছে মুসলমানদের পবিত্রতম মাস রমজান। এই মাসের রোজা রাখেন মুসলমানরা। রোজা পালন করেত সারাদিন পানাহার থেকে বিরত থাকতে হয়ে। ফলে শরীরে পানিশূন্যতার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। আর এবারের রোজা মার্চ-এপ্রিলের তীব্র গরমে পালন করতে হবে। গরমে দীর্ঘসময়ের এই পানাহার থেকে বিরত থাকা প্রভাব ফেলতে পরে ত্বকে,  কেড়ে নিতে পারে বর্ণের উজ্জ্বলতা।

তাই রোজার সময়ে ত্বকের জন্য চাই কিছু বাড়তি যত্ন। আর এজন্য ইফতার পরবর্তী সময়টাকে কাজে লাগানো যেতে পারে শরীরের পাশাপাশি ত্বকের যত্নে। চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে-
 
ইফতারে অবশ্যই স্বাস্থ্যসম্মত খাবার বেছে নেওয়াই উত্তম।  সুস্থ ত্বক পেতেেইফতারে অতিরিক্ত তেলে ভাজা-পোড়া ও মশলাযুক্ত খাবার অবশ্যই বর্জন করতে হবে। ভিটামিন "সি"যুক্ত খাবার যেমন লেবু, কমলা, ব্রকোলি, পেঁপে ইত্যাদি খআবার তালিকায় রাখতে হবে কেননা ভিটামিন "সি" ত্বকে পানিশূন্যতা পূরন করে ত্বককে রাখে সতেজ।  

গরমের কারণেএ সময় অবশ্যই পাতলা সুতির কাপড়ই বেছে নিতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া ভারী কাপড় না পরাই ভালো। গরম থেকে ত্বকে হতে পারে ঘামাচি বা ফোড়ার মতো বিভিন্ন চর্মরোগ। এক্ষেত্রে চর্মরোগ প্রতিরোধ করে এমন পাউডার ব্যবহার করা যেতে পারে।

আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা না বললেই নয়, ত্বকের পোর বা ছিদ্র বন্ধ করে প্রসাধন সামগ্রী ব্যবহার না করাই ভালো। যতটুকু না করলেই না ততটুকু ন্যন্যতম মেকআপ সামগ্রী ব্যবহার করা যেতে পারে।

গরমে ও রমজানে নিয়মিত ত্বকের যত্নে কিছু প্রয়োজনীয় টিপস

১ টেবিল চামচ পাকা পেঁপে বাটা, ১ টেবিল চামচ পাতিলেবুর সঙ্গে চালের গুঁড়া মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ফেলুন। এরপর ২৫ মিনিটের মতো ম্যাসাজ করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

কাঠবাদামবাটা, ঠান্ডা দুধ ও গোলাপ জল দিয়ে একটি ফেসপ্যাক তৈরি করে মুখে লাগাতে পারেন। এটি ত্বককে হাইড্রেট করে রাখে।

যাদের ত্বক শুষ্ক, তারা টমেটো, কলা, শসা একসঙ্গে মিলিয়ে প্যাক তৈরি করে ইফতারের ঘণ্টাখানেক পর লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এতে তো ত্বকে শুষ্কতা দূর হবে।

ত্বকে শুষ্কতা দূর করতে ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম বা লোশন  ব্যবহার করতে পারেন। এতে ত্বক মসৃণ এবং চকচকে থাকবে।

ত্বকে সাবানের পরিবর্তে ফেইসয়াশ ব্যবহার করুন এতে ত্বকের পিএইচের মাত্রা বজায় থাকে।

ইফতার থেকে সেহরি পর্যন্ত অন্তত ৭ থেকে ৮ গ্লাস পানি পান করুন। এতে শরীরের তাপমাত্রা বজায় থাকে এবং ত্বকও সুস্থ থাকে।

ফলমূল, শাকসবজি এবং ভিটামিন এ,বি,সি ও মিনারেলযুক্ত খাবার তালিকায় রাখুন।

কোমল পানীয়, ক্যাফেইনযুক্ত খাওয়া এবং অতিরিক্ত চিনিযুক্ত শরবত পান করা থেকে দূরে থাকে হবে।

About

Popular Links