Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পাঁচটি অযৌক্তিক প্রত্যাশা ধ্বংস করতে পারে আপনার সম্পর্ক

কজনকে বুঝতে হবে যে এই প্রত্যাশাগুলি কোথা থেকে আসছে এবং তাদের সঙ্গীকে নিয়ন্ত্রণ করার প্রবণতাকে নিয়ন্ত্রণ করা উচিত

আপডেট : ২২ জুন ২০২৩, ১১:০৩ এএম

ভালোলাগা থেকে ধীরে ধীরে দু'জন মানুষের সম্পর্ক গভীর হতে শুরু করে। আস্থা ও নির্ভরতা এই গভীরতাকে আরও দৃঢ় করে। তবে এ থেকে সঙ্গীর প্রতি প্রত্যাশাও বাড়তে  থাকে। আবার অপূর্ণ আশা থেকে জন্ম নেয় হতাশা। সম্পর্কের ক্ষেত্রে বড় ভুলগুলোর একটি হলো অযৌক্তিক প্রত্যাশা। মানুষ চায় প্রিয়জন তাদের মন বুঝুক। এ বিষয়টি সম্পর্কের ক্ষেত্রে ইতিবাচক না হয়ে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। তাই সুন্দর সম্পর্কের জন্য অযৌক্তিক প্রত্যাশাগুলোর উৎস বোঝা উচিত। পাশাপাশি সঙ্গীকে নিয়ন্ত্রণ করতে চাওয়ার প্রবণতা থেকে সরে আসা উচিত।

এখানে সঙ্গীর কাছে মানুষ আশা করে এমন পাঁচটি বিষয়ের কথা তুলে ধরা হলো, যা সম্পর্কে ক্ষতির কারণ হয়ে উঠতে পারে-

নতুনত্ব আশা করা: প্রতিনিয়ত সম্পর্কে নতুনত্ব আশা করা অনুচিত। সঙ্গীর সাথে প্রতিনিয়ত মনের ভাব এবং আকাঙ্ক্ষার কথা খোলাখুলিভাবে বলা উচিত।

মনের কথা বোঝার ক্ষমতা: মুখ ফুটে না বলতেই সঙ্গী সব বুঝে যাবে, এমন ভাবনা সম্পর্কের জন্য ক্ষতিকর। সঙ্গীর চিন্তাতেই নেই, অথচ আপনি আশা করে বসে আছেন। এমন হলে তিক্ততা বাড়তে পারে। তাই মনের ভাবনা সরাসরি বলুন। মনে রাখতে হবে সততা সম্পর্কের ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

সবকিছুতে রাজি হওয়া: সবকিছুতেই “হ্যাঁ” সূচক মনোভাব পোষণের বিষয়টিও একসময় সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। সঙ্গীর সঙ্গে সহমত পোষণের বিষয়টি স্বাভাবিক। পরস্পরের মতপার্থক্যকে উপলব্ধি ও সম্মান করা শক্তিশালী বন্ধনের জন্য অপরিহার্য। যদিও দ্বন্দ্ব ভালো কিছু নয়, তবে মতপার্থক্য সুস্থ সম্পর্কের অংশ। সম্পর্কে কখনোই ঝগড়া হবে না, এমনটা আশা করা অবাস্তব। কারণ ভিন্নমত এবং ব্যক্তিগত পছন্দ স্বাভাবিক জীবনের অংশ।

অতিরিক্ত স্নেহের আশা: প্রেম এবং স্নেহ সম্পর্কের মূল ভিত্তি। তবে সঙ্গী সবসময়ই আবেগ প্রকাশ করবে এমনটাও আশা করা অযৌক্তিক। সবারই ভিন্ন মেজাজ-মর্জি আছে। সঙ্গীর মানসিক অবস্থা না বুঝে অবিরাম স্নেহ দাবি করা অযৌক্তিক।

সব ছুটি বা অবসর একসঙ্গে কাটানো: সঙ্গীর কাছে তার সবগুলো ছুটি বা অবসর দাবি করা অন্যায্য। আপনার বাইরেও তার জগৎ থাকতে পারে। ব্যক্তিত্ব বজায় রাখতে এবং সম্পর্ককে শক্তিশালী করতে উভয়েরই শখ, বন্ধুত্ব এবং ব্যক্তিগত বিষয়ের প্রতি সম্মান রাখা উচিত।

About

Popular Links