Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বাংলায় লেখায় ফিরিয়ে দেওয়া হলো মন্ত্রীর চেক!

পরে চেকটি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেকটি নেয় বলে ফেসবুকের পোস্ট সম্পাদনা করে জানান মোস্তাফা জব্বার

আপডেট : ০৮ মে ২০২২, ১১:৪৮ এএম

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছেন, বাংলায় লেখার কারণে তার একটি চেক ব্যাংক থেকে ফেরত দেওয়া হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ বিষয়ে তিনি একটি স্ট্যাটাস দেন। এরপর বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়। 

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) বেলা ১১টা ৩৯ মিনিটে মন্ত্রী স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘‘মন চাইছে আত্মহত্যা করি। একটি চেকে আমি ডিসেম্বর বাংলায় লিখেছি বলে কাউন্টার থেকে চেকটি ফেরত দিয়েছে। কোন দেশে আছি?’’

পরে অবশ্য তিনি পোস্ট সম্পাদনা করে জানান, “আজ সকালে এক‌টি চে‌কে আমি ‘ডিসেম্বর’ বাংলায় লি‌খে‌ছি বলে কাউন্টার থে‌কে চেক‌টি ফেরৎ দি‌য়ে‌ছিলো।  এরপর সব ঠিক হয়েছে। এটা আমাদেরই বাংলাদেশ। প্রমাণিত হলো ন্য়য়সঙ্গত প্রতিবাদ করলে জয়ী হওয়া যায়। সেই চেকের টাকা ভাঙানো হয়েছে। জয় বাংলা।”

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মন্ত্রী গণমাধ্যমকে বলেন, তিনি তার পরিচিত একজনকে একটি বেয়ারার চেক দেন। চেকটিতে ‘‘ডিসেম্বর’’ বানান বাংলায় লেখা ছিল। সে কারণে একটি ব্যাংকের এলিফ্যান্ট রোড শাখায় জমা দিলে চেকটি প্রথমে ফেরত দেওয়া হয় ওই শাখার কাউন্টার থেকে। পরে ওই ব্যক্তি বাসায় ফিরে মন্ত্রীকে বিষয়টি জানান। এরপর মন্ত্রী নিজে বিষয়টি নিয়ে ব্যাংকের ওই শাখার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেন। এরপর শাখাটি পুনরায় চেকটি অনার করে।

মোস্তফা জব্বার গণমাধ্যমকে আরও বলেন, ‘‘আমার হিসাব ব্যাংকটির মতিঝিলের প্রিন্সিপাল শাখায়। আমি চেকে বরাবরই মাসের নাম বাংলায় লিখি। কিন্তু প্রিন্সিপাল শাখায় এ নিয়ে কোনো সমস্যা হয়নি। এবারের চেকেও আমি তারিখটি লিখেছি ‘০২ ডিসেম্বর, ২০২১’। এটি ছিল বেয়ারার চেক। যাকে চেকটি দিয়েছি, তিনি ব্যাংকটির এলিফ্যান্ট রোড শাখায় জমা দিতে গিয়ে প্রথমে ব্যর্থ হন মাসের নাম বাংলায় লেখার কারণে। পরে আমি যোগাযোগ করায় চেকটি অনার হয়।’’

About

Popular Links